প্রাণে প্রাণ মেলাবই.....
ব্লগপ্ল্যাটফরম

karigor.com

karigor.com

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষন

ইস্টিশনের যন্ত্রপাতি

ওয়েটিং রুম

ভোটকেন্দ্র

ক্রিকেটে ঢাকাকে পাকিস্তানের হোমভেন্যু বানানোর সিদ্ধান্তকে আপনি কি সমর্থন করেন?:
 

আওয়ামী এক রাজপুরুষের কাহিনী!


একটি সরকারি নাগরিক সেবামূলক প্রতিষ্ঠান কার্যত পুরোপুরি অচল। নগরবাসী এ থেকে সুষ্ঠুভাবে কোনো সেবাই পাচ্ছে না। কারণ প্রতিষ্ঠানটির দায়িত্ব এখন দেশের সর্বময় ক্ষমতার যিনি প্রধান, তার এক আত্মীয়ের হাতে। সুপেয় ও ব্যবহার্য পানি সরবরাহ, পয়ঃনিষ্কাশন তথা স্যুয়ারেজ-ড্রেনেজ ব্যবস্থাপনা ও নগরীর খাল-বিল রক্ষা করে নগরীকে পানিজনিত দুর্ভোগ থেকে মুক্ত রাখাটাই এই প্রতিষ্ঠানের কাজ। নাম তার ঢাকা ওয়াসা।

বিভাগঃ



পসেটিভ-নেগেটিভ


আজকাল পসেটিভ জিনিস গুলো হয়ে গেছে নেগেটিভ। আর নেগেটিভ গুলো পসেটিভ। বুঝতে পারছেন নাতো!!! একটা উদাহরণ দিলেই বুঝে যাবেন কি বলতে চাচ্ছি। তার আগে দরকার বিষয় দুটির সম্পর্কে জানা। একটা কথা বললে সবার মনে প্রথমেই যে ভাবনা আসে সেটাই পসেটিভ। আর যা বেশির ভাগ মানুষ কল্পনা করতে পারে না একটা কথা শুনে প্রথমে সেটা নেগেটিভ।




নায়লা নাইম , একটি প্রশ্ন ও নারীর প্রুতি আমাদের দৃষ্টি ভঙ্গি


নায়লা নাঈম।অনলাইন ও মিডিয়ার এক আলোচিত নাম। ফেসবুকে খোলামেলা ছবি দিয়ে যিনি ইতমধ্যে অনেকের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।তার শাড়ী থেকে শুরু করে ব্রার সাইজ সবই যেন ফেসবুক দুনিয়ার আলোচনার বিষয়বস্তু ।তার একেকটি ষ্ট্যাটাস কিংবা সেলফিতে লাইকের ঝড় বয়ে যায়,তাকে নিয়ে পত্রিকার বিনোদন বিভাগে নিউজ হয় ।আর যাদের ধর্মাণুভূতি কিংবা ভদ্রতানূভুতি ক্ষতিগ্রস্থ হয় তাকে ঘিরে তাদের গালি গালজ খিস্তিখেঊড়ও চলতে থাকে সমান তালে। গালি গালজ খিস্তি খেউড় কী ধরনের ভদ্রতাবোধ, ধর্মবোধের পরিচয় দেয় তা তারাই ভাল জানে ।




সাহসের একটাই রং; তার নাম সিরাজ সিকদার


বাংলা চিরকালই দুখী। কারণ এখানকার শাসনভার এখানকার জনগোষ্টী পায়নি। বার বার বাংলা পদানত হয়েছে বিদেশী শক্তির দ্বারা, ভিন জাতী গোষ্ট্রি শোসন শাসন মেনে নিতে হয়েছে এই জনপদের মানুষকে। আবার স্বাধীনতার জন্য এই জনপদের জনগন ভারতীয় উপমহাদেশের মধ্যে সব থেকে বেশি মাত্রায় সংগ্রাম পরিচালিত করেছে। এ কারণে এই জনপদকে বলা হয় বোগলুকপুর বা বিদ্রোহের দেশ। ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ উপনিবেশ থেকে মুক্ত হয়ে পাকিস্তান কায়েম হয়। মুক্তি আসে না। নতুন করে শুরু হয় স্বাধীনতার জন্য দীর্ঘ প্রস্তুতি। সেই প্রস্তুতির চরম প্রকাশ ১৯৭১ সালে। এ পর্বে এসে বাংলায় নানা রাজনৈতিক সংগঠন ব্যক্তি দেখা যায় যার মধ্যে সিরাজ সিকদার ও সর্বহারা পার্টি এক অন্




খান এ সবুর ; অপরাধী বাংলাদেশ।


এই লেখাটা সম্ভবত আমি লিখতে বসতাম না। বা বলতে গেলে আমাকে লিখতেই হত না। একটা তথ্য খুজতে গিয়ে আমি হতবাক হয়ে গেছি। সেই বাকহীনতা কাটায়ে এই লেখার অবতারণা। খান এ সবুরকে হয়তো প্রজন্ম ভুলে গেছে। নয়তো উইকিপিডিয়ায় তার মত ঘৃণ্য দালালের সম্পর্কে লেখা থাকতো না,"খান-এ-সবুর বাংলাদেশের
স্বাধীনতার ইতিহাসে এক
উজ্জ্বল লক্ষত্র। লাখ লাখ
মুসলমানের রক্তের
বিনিময়ে সাতচল্লিশের
দেশবিভাগ এবং ১৯৭১
সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর
রহমানের ও জিয়াউর রহমানের
নেতৃত্বে স্বাধীন সার্বভৌম
বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা দু'টোতেই
অসাধারণ অবদান রেখেছিলেন
খান-এ সবুর। স্বাধীন বাংলার
ইতিহাস তার নাম ছাড়া অপূর্ণ




নিরাপদ সড়ক পেতে আর কত জীবন চাই


দিনে দিনে বাংলাদেশের সড়কগুলো যেন মৃত্যু উপত্যকায় পরিণত হচ্ছে । এখানে স্বাভাবিক মৃত্যুর কোন গ্যারান্টি নাই । প্রতিদিনই দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় বহু মানুষ নিহত হচ্ছে এবং পঙ্গুত্ব বরণ করেছে বিপুল সংখ্যক । সড়ক দুর্ঘটনায় দেশের শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তি থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষের কেউ বাদ যাচ্ছে না । সকল মৃত্যুই করুন, যন্ত্রনার এবং একটি নির্দিষ্ট পরিমন্ডলে সকলের মৃত্যুই কাউকে না কাউকে নিভৃতে কাঁদায় কিন্তু সে মৃত্যুর অনেকটাই আমরা শুধু সচেতনতার অভাবে রোধ করতে পারছি না । এড়ানোর যোগ্য এ মৃত্যুর কারনে দেশ যেমন সার্বিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয় তেমনি দায়িত্বশীলদের ব্যর্থতার ছবিও প্রকটভাবে ফুটে ওঠে । গত ২০




সাপের খেলা ও সাপুড়ে বা বেদে সম্প্রদায় পর্ব – তিন(৩)


সাপের খেলা ও সাপুড়ে বা বেদে সম্প্রদায় পর্ব – তিন(৩)

সাপের খেলা ও সাপুড়ে বা বেদে সম্প্রদায় পর্ব – দুই(২)

আমাদের গ্রাম সমাজে একটি প্রবাদ প্রচলিত---- সাপুড়েদের মরণ এই সাপের দংশনে।

তার পরেও চলে সাপ ধরা ও তা দিয়ে সাপের খেলা দেখানো। পাশাপাশি চলে ওষুধ বিক্রিও।সাপ খেলা এসেছে এ কথা শুনলেই গ্রামের ছেলে বুড়ো সবাই খুশিতে ভরে উঠতো।

কোথায়, কোনদিকে, কোনগ্রামে, আমাদের পাড়ায় আসবে না?




দাদারা, সাবধান


জেলা শিল্পকলা একাডেমী চট্টগ্রাম আয়োজিত, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশান চট্টগ্রাম বিভাগের সহযোগীতায়, চট্টগ্রাম শিল্পকলা একাডেমীতে গত ১৭ অক্টোবর থেকে শুরু হয়েছে ১৬ দিন ব্যাপী নাট্যোত্সব। চলবে ১ নভেম্বর পর্যন্ত।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের চেয়ারম্যান এবং বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী’র মহাপরিচালক জনাব লিয়াকত আলী লাকী।




আমার প্রিয় ১০ ডিরেক্টর(পর্ব-১)[My 10 Favorite directors (part1)]


The top ten directors list starts:

10. Jason Reitman

Directors of - Juno, Up In The Air, Thank You for Smoking (film), Young Adult, Labor day

Known in Bangladesh and the world for movies like - Juno, Up In The Air, Thank You for Smoking (film)

First seen by me- Thank You for Smoking

বিভাগঃ



ঢাবিসহ অন্যান্য বিশ্ববিয়ালয়ে একবার ভর্তি পরীক্ষা গ্রহনের ব্যাপারে আমার মতামত


ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষ থেকে ২য় বার
ভর্তি পরীক্ষা দেওয়ার সুযোগ বাতিল করা হয়েছে।
এটি নিঃসন্দেহে একটি যুগোপযোগী সিদ্ধান্ত।
এমনকি আমি মনে করি অন্য সকল বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিকেল
ভর্তির ক্ষেত্রেও একই পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিৎ।
এতে দুটো ব্যাপার খুব ভালো হবে। প্রথমত,
শিক্ষার্থীরা তাদের একটি বছর সময় নষ্ট হওয়ার
ব্যাপারে সচেতন হবে।কেননা অনেক
শিক্ষার্থী মনে করে প্রথম বছর
হয়নি তো কি হয়েছে আগামী বছর নিশ্চয় হবে। এতে তার জীবনের
মহামূল্যবান এক বছর সময় নষ্ট হয়।দ্বিতীয়ত যে শিক্ষার্থী ১
বছর যাবত প্রস্তুতি নিচ্ছে আর
যে শিক্ষার্থী এইচ,এস,সি পরীক্ষার পর




আমাদের অহেতুক আত্মসম্মানবোধ || পরিণতি ভয়াবহ


আমরা যারা 'তৃতীয় বিশ্বে'র মানুষ; তাদের
একটা কমন বৈশিষ্ট্য আছে! সেটা হচ্ছে,
যেহেতু আমাদের আক্ষরিক অর্থ-সম্পদ
তেমন একটা নেই, তথাকথিত সম্মান ও
মর্যাদাই আমাদের কাছে সবচেয়ে বড়
সম্পদ! আর তাই, আমরা এ
পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি যে জিনিসটাকে গুরুত্ব
দিই, সেটা হচ্ছে তথাকথিত 'আত্মসম্মান'!
এবং আমাদের
মধ্যে আরো একটা ধারণা প্রবল,
সেটা হচ্ছে, এই তথাকথিত 'আত্মসম্মান' এর
মানদণ্ড হচ্ছে উচ্চতর শিক্ষা!
এ কারণে আমাদের জীবনের সবচেয়ে বড়
লক্ষ্য থাকে উচ্চতর শিক্ষা গ্রহণ
এবং (অত্যন্ত দুঃখজনকভাবে)
সে শিক্ষা বিক্রয়
করে একটা ভালো চাকরি নিয়ে সুখে-
শান্তিতে জীবন-যাপন! না, সুখে-
শান্তিতে জীবন-যাপন

বিভাগঃ



স্বীকারোক্তি


১. অনেকেই সাধারণত বলে এক্সেপেরিয়ান্স বা অভিজ্ঞতা মানুষের কাব্য প্রতিভা জাগ্রত করে। সে এক্সেপেরিয়েন্স হতে পারে ভ্রমন, প্রেম, বিচ্ছেদ ইত্যাদি। কিন্তু আমার কাছে মনেহয়, মানুষ কষ্ট থেকে সবচেয়ে বেশি অভিজ্ঞতা অর্জন করে। আর আমি হলফ করে বলতে পারি, কোন মানুষ যদি মৃত্যুর পর কাব্য লেখার সুযোগ পেত তাহলে সে পৃথিবীর শ্রেষ্ট কাব্যিক হতো। কষ্ট মানুষের কাব্য প্রতিভাকে জাগ্রত করে আর মৃত্যু হচ্ছে সেই কষ্টের শেষ সীমানা। আমি স্বীকার করছি যে আমি বহু বার-ই আমি সেই সীমানার কাছাকাছি গিয়েছি কিন্তু সীমানা অতিক্রম করতে পারিনি। ব্যার্থ হয়েছি। আর তাই নির্লজ্জের মতো নিজেকে কাব্যিক দাবী করার স্পর্ধা করতে পারিনা..….




আমার প্রিয় কয়েকটি Android Software। আপনার অবশ্যই ভালো লাগবে।


আসসালামু আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই। আমি আমার নতুন একটা কাজ নিয়ে একটু ব্যাস্ত থাকায় কয়েকদিন ধরে তেমন কিছু শেয়ার করতে পারিনাই। যাই হোক আমার কাজ প্রায় শেষ। আশা করি প্রতিদিন আপনাদের সাথে কিছুনা কিছু শেয়ার করতে পারব। আপনারা আমার জন্য দোয়া করবেন। আজ আমি আপনাদের সাথে প্রতিদিনের মত একটি নয় একসাথে কয়েকটি এন্ড্রয়েড Software শেয়ার করব।বিভিন্ন এপ এর বিভিন্ন কাজ তাই সব এপ সম্পর্কে বিস্তারিত বলা সম্ভব হলোনা। আমি আজ যে Softwareগুলো শেয়ার করতে যাচ্ছি সেগুলো সবার মোবাইলেই প্রয়োজন।আমি মনে করি সবার Software গুলো ভালোই লাগবে। তবে আমি আগেই বলে রাখি এই Softwareগুলো এর আগে কেউ শেয়ার করেছে কিনা জানিনা তবে Softwareগুলো




খালি সাম্রাজ্যবাদের ঘাড়ে দোষ চাপায়া মুক্তি মিলবে কি? (দ্বিতীয় ও শেষ পর্ব)


ইরাকে ২০০৩ সাল থেকে সাম্প্রদায়িক বিভাজনের যে রাজনীতি যুক্তরাষ্ট্র শুরু করেছে, এবং কমিউনাল লাইন অনুসারে ইরাক দেশটাকে টুকরো করেছে, তা কোন নতুন রাজনীতি না। কলোনাইজেশনের একেবারে শুরু থেকেই সাম্রাজ্যবাদী শক্তিগুলো এই কাজ করে আসছে। তারা ভারতিয় উপমহাদেশে কমিউনাল লাইনে বাঙলাকে ভাগ করে রেখে গেছে, তাতে হিন্দু মুসলিম সাম্প্রদায়িকতার যে অর্থনীতি ও সামাজিক চর্চা বিকাশ লাভ করেছিল তা আজ অবধি টিকে আছে। ফিলিস্তিনেও এই কাজ করা হয়েছে, ইহুদি ও মুসলিম কমিউনাল লাইন অনুসারে দুইটি রাষ্ট্র করার যে প্রক্রিয়া তারা শুরু করেছিল তার ফলাফল আমরা এখনো দেখতে পাচ্ছি। জিয়া হাসান এই বিষয়টিকে বলছেন কলোনাইজারদের ‘ডিভাইড এন্ড রুল’ প


হাতড়ান

ফেসবুকে ইস্টিশন

প্রজন্মের বায়োস্কোপ

বাংলা চলচ্চিত্র- বৃহন্নলা

  • বড় করে দেখুন
  • কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৪ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর