নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • মেহেদী এইচ রবিন
    • চাঁদসওদাগর
    • রুশদী
    • নীলকান্ত
    • বেহুলার ভেলা

    নতুন যাত্রী

    • অনিসাদ রাজেদ
    • সৈয়দ সাইকোপ্যাথ...
    • সোয়াইব
    • টুকাইন্না পোলা
    • সালিকা সেতু
    • শাশ্বত-অনু।।
    • নাফি
    • চাঁদসওদাগর
    • ভূতের ছানা
    • রিয়াদ নুর

    গিটারের গেরিলা কবির সুমন : ‘ছেলেবেলার সেই লোকটা চলে গেছে গান শুনিয়ে’


    (প্রচণ্ড জ্বর। জ্বরের মধ্যে আমি শুধু দেখি আজরাইল ফেরেশতার বেশ ধরে কে যেনো আমার শিয়রে বসে। তারপরও কবির সুমনকে নিয়ে লিখলাম, কারণ আমি তার ভক্ত ছিলাম।)

    ♦ আসুন না একটু নিজের আয়নায় নিজেকে একটু দেখি ♦


    সবাই এখন Expert Opinion দিতে শুরু করে দিয়েছে। আমি জানি এসবও সাময়িক। আর মাত্র দিন সাতেক পরেই আমরা আবার সব ভুলে যাব। আমাদের বাঙলাদেশীদের মধ্যে ভুলে যাওয়ার মতো একটি ভালো রোগ আছে। কারণ যে প্রাণীর স্মরণ শক্তি যত কম সে প্রানী তত সুখী। ইতিহাসবিদগণ এই রোগের নাম দিয়েছেন "Willful cultural forgetfulness"। আসলে এই পিচ্ছিল গতিময় সময়ে সবই সাময়িক। মহাকালের দেয়ালে আচড় দেয়া এই সময়ে খুবই দুরুহ।

    ইসলামকে দুরে রেখে জঙ্গিবাদ দুর করা যাবে না, পর্ব-২


    প্রধানমন্ত্রী, মন্ত্রী, সকল মিডিয়া তারস্বরে প্রচার করছে জঙ্গিবাদের পেছনে ইসলামের কোন হাত নেই , হাত আছে ইহুদি , মোসাদ , বিদেশী সংস্থা বা দেশী কিছু উগ্র সংগঠনের। তাদের মর্ম যাতনাটা বোঝা কষ্টসাধ্য নয়। বাপ দাদা চৌদ্দপুরুষের ধর্ম ইসলামকে তারা মেনে এসেছে , হঠাৎ করে সেই ধর্মকে তারা কিভাবেই বা জঙ্গি হিসাবে মেনে নেবে। সেটা সম্ভব না। কিন্তু যখন দেখা যায়, জঙ্গিবাদের পেছনে সব আজগুবি কথা বার্তা বলছে , এমন কি কোরান হাদিস থেকে ভুল উদ্ধৃতি দিচ্ছে , তখন তো আর সেটা মেনে নেয়া যায় না। এ ধরনের অনধিকার চর্চাকে তো মেনে নেয়া যায় না।

    কবিতা- আমি না হয় ভাল আছি কাকহীন এই ভোরে ।


    আমি না হয় ভাল আছি
    কাকহীন এই ভোরে,
    স্পর্শগুলো অতলস্পর্শী
    কত দুরে, কত দুরে ।

    আমি না হয় ডাকি তোমায়
    তুমি দাওনি সাড়া,
    গোধুলী লগ্নে বিকেলবেলায়
    অপেক্ষায় সন্ধ্যাতারা ।

    আমি না হয় আমিই থাকি
    দেখব ইচ্ছে খুব,
    চোখের তারায়, কথা হারায়
    অশ্রু জলে ডুব ।

    আমি না হয় হাত বাড়িয়ে
    জোৎস্না ধরবো বলে,
    খুব কি ক্ষতি, থাক না নীতি
    হাতটা বন্দী হলে ।
    ****************
    © সৈয়দ সাইকোপ্যাথ তাহসিন

    কবিতা : ঘুণপোকার মিছিল


    সময়ের ঘড়ি বয়ে চলে রোজ
    এই বেহিসাবি খেলা, নেই কোন খোঁজ,
    জীবনের স্রোত থামে না'তো কভু
    এ কেমন ঘোর বুঝি না'তো প্রভু ।
    প্রিয়তীর চোখে বোবা অবিলাস
    চাপা কবিতারা বোকা পরিহাস,
    বুনো উল্লাসে ঘুণপোকার মিছিল
    আকাশে উড়ে কত শঙ্খচিল ।
    আলো-আধাঁরে নেই হাসিমুখ
    বারবার ভিজে রক্তাভ চোখ,
    কালের খেয়ায় খরস্রোতা নদী
    ডুবে যেতে গিয়ে ভাসি নিরবদী ।
    চশমার কাঁচে জমে জলের ধারা
    আকাশ আমায় ডাকে দেব কি সাড়া ?
    * * *
    © সৈয়দ সাইকোপ্যাথ তাহসিন

    ধর্ম ও ক্ষমতা


    সব দোষ নন্দ ঘোষ, যা কিছু হারায় গিন্নি বলে কেষ্ট ব্যাটাই চোর। নিজেদের ভুল কেউ স্বীকার করতে চায় না। দায়িত্ব কেউ নিতে কেউ রাজী নয়!! ইসলামের হেজাজতের নামে কত সাধারণ মানুষ ওই হাট-হাজারী হুজুরের নেতৃত্ব মেনে নিয়ে জীবন দিয়েছে। আজ তাদের অবস্থান কি??? তাদের কোন খোঁজখবর কি তারা রেখেছেন?? শুক্রবারের খুতবা যদি মানুষকে প্রভাবিত করত তবে বাংলাদেশ হাজারবার সরকার পরিবর্তন হত। যেই ইহুদী যারা অনাদিকাল খ্রিস্টান - মুসলমান দের ধর্মীয় বিবাদ সেই ইহুদীকেই, আবার এখন তাদের ধর্মীয় শুদ্ধিতে মোক্ষম ভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে!! মাএ ১৬ মিলিয়ন ইহুদী সারাবিশ্ব চালাচ্ছে ?

    সময় আমাকে এগিয়ে দেবে বিস্মৃতির দিকে অল্প আর...


    আমি বুড়ো হয়ে গেলেও হারাবে না তারুণ্য জানি
    কোন বালক আবার এক পলকে পরিণত হয়ে যাবে,
    কারো স্নিগ্ধ ঝলক পাগলা ঘন্টি বাজাবে হৃদয়ে তার...

    আমি একাই এগুবো পরম শূন্যতার দিকে অল্প আর...

    কেউ বোঝেনি আমাকে, একদম কেউ না
    প্রতিবেশী অরণ্যের শেষ ঘুঘুটাও উড়ে গেছে
    এই উঠোনে পাকা ধান অবশিষ্ট নেই বলে!
    শুকিয়ে ঝরে গেছে শেষ অপরাজিতা নীল
    চলে গেছে হলুদ দুপুরের একমাত্র সহচর চিল...

    আর বিশেষ কারো কথা বলি না আমি,
    সে অনেক আগেই হিসেবের বাইরে সরে গেছে...
    এরপর ধীরে গাঢ় হয়েছে দুঃসহ শীতল রাত,
    অনুসারী অসহ্য ভ্যাপসা দিন...

    নটোরিয়াস কালপ্রিট


    মহাজনী সব দরবার চলে
    দরাদরি গোলটেবিলে
    বঙ্গবন্ধুর ছায়ামানব হয়ে
    ফাইল হাতে সাথে তুমি ছিলে।

    ইয়াহিয়া ভাবে মুজিব আপদ
    ভুট্টো বলে তা নয়
    ফাইল হাতে চুপচাপ পিছে
    নটোরিয়াস কালপ্রিট ইউ বয়।

    পুলসিরাতের বিপদ মাথায়
    চাষির বেশে সীমান্তে গেলে
    শেরপা হয়ে আমিরুল সাথে
    থিয়েটার রোডে ঠিকানা পেলে।

    ডাকোটা বিমান কোনোমতে ওড়ে
    তোমার জন্য পঙ্খীরাজ
    শোল্ডারওয়ালা জীর্ণ শার্টে
    প্রধানমন্ত্রী তুমি বঙ্গতাজ ।

    বাংলাদেশের দুধ পিতা তুমি
    লালন করেছো শিশু দেশটারে
    সয়েছো শতেক গ্লানি কথন
    যুঝেছো ঘরে ও বাহিরে।

    অবোধের ডায়রি - ১: একটি অনুকরণসর্বস্ব জাতির উপাখ্যান।


    (সম্পূর্ণ খণ্ড) ১. মনে করুন, কিছু একটা অর্জন করার জন্যে হঠাৎ করেই আপনার মাঝে একটি তীব্র আকাঙ্ক্ষার সৃষ্টি হল এবং আপনি যে বস্তুটি অর্জন করতে চাচ্ছেন সেটি চাইলেই পাওয়া সম্ভব নয়। কিন্তু বস্তুটি ছাড়া যে আপনার একদমই চলবে না সেটা আপনি খুব ভালো করেই জানেন এবং সে কারনেই আপনি বস্তুটি হস্তগত করার ব্যাপারে দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এমতাবস্থায় আপনি কী করবেন ?

    ইসলামকে দুরে রেখে জঙ্গিবাদ দুর করা যাবে না। পর্ব- ১


    যে যত কথাই বলুক না কেন ,আর জঙ্গিবাদের জন্যে যতই ইহুদি নাসারাদের ওপর দোষ চাপান হোক না কেন, যাদেরকে জঙ্গি বানান হয় তাদেরকে কোরান ও হাদিসের বানী দ্বারাই ব্রেইন ওয়াশ করা হয়। এসব তরুন জঙ্গিদেরকে ব্রেইন ওয়াশ করার জন্যে আর কোনই মন্ত্র নেই। জঙ্গিবাদের কারন হিসাবে ইহুদি ,নাসারা , ব্রেইন ওয়াশ , ইত্যাদিকে দোষারোপ না করে , আমাদের ইসলামের দিকে দৃষ্টি দিলেই কাজ বেশী হবে। ইসলামকে বাদ দিয়ে , দুনিয়ার বাকী সবাইকে দোষারোপ করে জঙ্গিবাদ দুর করা যাবে না। এবার জঙ্গিবাদ দুর করতে যা যা করনীয় তা বলা হলো।

    কোরানের যে সব আয়াত আমাদের তরুন তরুনীদেরকে সোজাসুজি জঙ্গি বানায়, সেগুলোর কিছু নিচে দেয়া হলো -

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর