প্রাণে প্রাণ মেলাবই.....
ব্লগপ্ল্যাটফরম

karigor.com

karigor.com

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষন

ইস্টিশনের যন্ত্রপাতি

ভোটকেন্দ্র

শৃঙ্খলা ভঙের দায়ে সাকিব'র বিরুদ্ধে ক্রিকেট বোর্ডের নেওয়া সিদ্ধান্তকে কি সমর্থন করেন?:


ভুলে যাওয়া নাফিসা কবির : যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের মূল পরিকল্পনাকারী


নাফিসা কবিরের নাম সম্ভবত আমাদের তরুণ প্রজন্মের অধিকাংশই জানেন না। তার বাবার নাম মাওলানা হাবিবুল্লাহ, যিনি ঢাকা আলিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল ছিলেন। পিতার নাম শুনে হয়তো কেউ কেউ পরিবারটি সম্পর্কে আন্দাজ করতে পারেন। এই পরিবারেরই দুইজন সদস্য সারা বঙ্গে তো বটেই বিশ্বজুড়েও খ্যাতিমান। একজন নাফিসা কবিরের বড় ভাই, আরেকজন তার ছোট ভাই। তারা হচ্ছেন, শহীদুল্লা কায়সার ও জহির রায়হান। কীর্তিমান এই দুই বাঙালিকে সারা দেশের মানুষ চিনলেও আজো স্মরণ করলেও নাফিসা কবির রয়ে গেছেন একেবারে আড়ালে। যদিও আজকের বাংলাদেশ গঠনে তার ভূমিকা ব্যাপক। একাত্তরের ঘাতক-দালালদের বিচারের মুখোমুখি করার মূল পরিকল্পনাটা তিনিই সাজিয়েছিলেন।




সিএইচটি কমিশন, গো হোম, ইউ আর ড্রাংক!


পার্বত্য চট্টগ্রাম নিয়ে এখন পর্যন্ত যত সংগঠন কাজ করছে, তাদের মধ্যে অন্যতম সক্রিয় ও পরিচিত একটি সংগঠন হচ্ছে, পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক আন্তর্জাতিক কমিশন। সংক্ষেপে সংগঠনটি সিএইচটি কমিশন নামে পরিচিত। সিএইচটি কমিশনের উদ্দেশ্য কী? অন্তত তাদের ওয়েবসাইটে ঘেঁটে যা পাওয়া গেছে, তার সারমর্ম হলো, পার্বত্য চট্টগ্রামে মানবাধিকার, গণতন্ত্র, নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকার, অংশগ্রহণমূলক উন্নয়ন ও ভূমি অধিকারের বিষয়গুলো উৎসাহিত করা তাদের কাজ। একই সাথে শান্তিচুক্তি কতটুকু বাস্তবায়িত হয়েছে – সেটি নিরীক্ষাও তাদের অন্যতম উদ্দেশ্য। আলোচনা শুরুর আগে আলোচিত ও সমালোচিত সিএইচটি কমিশনের পেছনটাও একটু দেখে নেয়া দরকার।
বিভাগঃ



ব্রহ্মার বাঙালী দর্শন


ব্রহ্মা সর্গে থাকিতে থাকিতে ক্লান্ত হইয়া পড়িলেন, অবশেষে মনস্থির করিলেন বিশ্বব্রহ্মাণ্ড ভ্রমণে বাহির হইবেন, তিনি বিষ্ণু কে ডাকিয়া কহিলেন, ওহে ভ্রাতা আমি বিশ্বব্রহ্মাণ্ড ভ্রমণে বাহির হইবো তুমি কি আমার ভ্রমণ সাথি হইবে?




একজন আস্তিক মহিলা ওমরাহ পালন প্রসঙ্গে কিছু প্রশ্ন ??


বেগম জিয়ার নিজের দুইটা সন্তান আছে বতমানে বেগম জিয়া ওমরাহ পালনের জন্য কাবা শরীফে আছে । সাথে তার বড ছেলেও আছেন । সুতারাং মায়ের যে কোন সুবিধা অসুবিধা দেখার দায়িত্ব একমাত্র নিজ সন্তানের উপর । অথবা নিকটাত্বীয় কোন একজনের উপর । তারপর ও যদি তা সম্ভব না হয় কোন মহিলা তার সেবার দায়িত্ব নিতে পারে ।
কিন্তু আজ পয়ন্ত কেউ বলতে পারেন সৌদিআরবের মত পবিত্র মাটিতে নিজ সন্তান কিংবা কোন মহিলা এই দায়িত্ব নিতে পারেন দেখেছেন । নিজের সন্তান তারেক তার মায়ের ট্রলি ঠেলতে ??




ভালবাসার অপরাধে আমার ফাঁসি হউক


আমি চাই - তোমাকে ভালোবাসার দায়ে আমার ফাঁসি হউক
অথবা আমার থেকে কেড়ে নেওয়া হউক ৪০/৪৫ টি বসন্ত ।
আমার জীবনে আর কখনোই না আসুক বরষা স্নাত সন্ধ্যা ,
না আসুক শিশির ভেজা ঘাস ।
গোধূলির সোনালী আভা ,
ওই রক্তিম সূর্যের সাক্ষী যেন আর না হতে হয় আমায় ।
রাত্রির তিমির কোনদিন আমার প্রেমিকসত্তাকে জাগ্রত না করুক ,
ভোরের হিমেল হাওয়া না ভিজিয়ে দিক আমার সর্বাঙ্গ ।
আমি চাই না - মাছরাঙ্গাটির সাথে আর চোখাচোখি হউক ,
মধ্যাহ্নের কিছু আগে চড়ুইটা শীষ দিয়ে ডেকে যাক ।
আমি চাই - তোমায় ভালবাসি বলে আমার ফাঁসি হউক ।

বিভাগঃ



নাম করনের সার্থকতা।


যে কোন কিছুর জন্য একটি সুন্দর নাম অনেক গুরত্ব বহন করে। নাম হওয়া চাই সুন্দর, সহজ, শ্রতিমধুর সকলের কাছে গ্রহন যোগ্য ও মানানসই।
রাজনেতিক ও ঐতিহাসিক ও জনপ্রিয় নায়ক নায়িকার নামে বিভিন্ন সময় পোশাকের নাম করন করা হয়।
বঙ্গবন্ধুর পরিধান করা মুজিব কোর্ট এর ৬টি বোতাম ঐতিহাসিক ৬ দফা দাবির কথা স্বরন করে।
বঙ্গবন্ধুর পরিধান করা কোর্ট কে মুজিব কোর্ট বলা হয়।
বাংলা ছবির নায়িকা সুচিত্রা সেন কলার ওয়ালা ব্লাউস পড়তেন তা দেখে অনেক বাংঙ্গালী অনুকরন করছিলেন যা সুচিত্রা ব্লাউস নামে পরিচিতি ছিল।




উপলব্ধি


এক ছেলে জন্য তার প্রেমিকাকে বিয়ের প্রস্তাব দিলো ...

মেয়েঃ আমাকে বলো, তুমি এই বিশ্বে সবচেয়ে বেশি কাকে ভালোবাসো ??
ছেলেঃ অবশ্যই তুমি !!
মেয়েঃ আমি তোমার কাছে কিরকম ??
ছেলেঃ এক মূহুর্ত চিন্তা করে নিয়ে সরাসরি মেয়েটির চোখে তাকিয়ে " তুমি আমার হৃদয়ের হারানো অংশ "

বিভাগঃ



শুনো


বসুধা শুনছো,
কংক্রিটের দেয়াল টা আমার ভীষন প্রিয়।
ফোকরে লুকিয়ে থাকা চড়ুরের শান্তির নীড় দেখি
পাশে আস্তাকুরে শুয়ে থাকা নেংটো মানুষ দেখি,
দেয়ালের ওপাশের উঁচুদালানে ঘুমন্ত মানুষের শ্বাস চলে পরশের।

জানো,
আজ খুকু একটা লাল ফ্রক, আর তিব্বত স্নো চেয়েছে।
আলসারের ব্যাথা নিয়ে রিক্সা চালিয়েছি। স্নোর টাকাটা এখনো পাই নি।
লাল ফ্রক টা আমার চোখে পানি এনেছে।
বুকের মাঝে আলসারের ব্যাথাটা হচ্ছে।




যদি আমি সময় ভ্রমণের সুযোগ পাই, তাহলে আমি বার বার করে যাব হেনা দাসের শোক-মিছিলের সেই দিনটিতে!


২০০৯ সালের জুলাই মাসে যখন কমরেড হেনা দাস মৃত্যুবরণ করে, তখন আমি বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শাখার একজন কর্মী। মৃত্যুর খবর শোনা মাত্র, আমরা ছাত্র ইউনিয়নের নেতা-কর্মীরা বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের দিকে রওনা দেই- মরদেহ দেখতে। মরদেহটি সেখানে দিন সাতেকের জন্য রেফ্রিজারেশনে রাখা হবে কারন তার নিকট-আত্মীয়দের মধ্যে কেউ কেউ দেশের বাইরে থাকে, তারা মরদেহটি শেষবারের মত দেখতে আসবে, সেজন্যই এই ব্যবস্থা। হাসপাতালে পৌঁছেই দেখি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির বেশ কিছু নেতা-কর্মী মরদেহটিকে চক্রাকারে ঘিরে আছে, যতটুকু মনে পড়ে তারা তখন সম্ভবত সমবেত স্বরে ইন্টারন্যাশনাল(সমাজতান্ত্রিক ভাবসঙ্গীত) গাইছিল।




‘কিউরিয়াস মাইন্ড ওয়ান্টস টু নো – এত ট্যাকা যায় কই?’


সাজেক। বাংলাদেশের সর্ব দক্ষিণের ইউনিয়ন, আয়তনে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ইউনিয়নও বটে। রাঙ্গামাটি জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলাধীন শরীর অবশ করে দেয়া সৌন্দর্যের অধিকারী এই সাজেকে যেতে হলে আপনাকে খাগড়াছড়ির উপর দিয়েই যেতে হবে। ভারতের সাথে সীমান্তবর্তী এই ইউনিয়নের আয়তন প্রায় ৪৩৭৭৬০ একর বা প্রায় ১৭৭১ বর্গ কিলোমিটার। বাংলাপিডিয়া জানাচ্ছে, ২০১১ সালের আদমশুমারি অনুযায়ী এই বিশাল ইউনিয়নের মোট জনসংখ্যা ছিল মাত্র ২৩,২০৫ জন। অর্থাৎ প্রতি বর্গ-কিলোমিটারে মোট জনসংখ্যা মাত্র ১৩ জন। ১৯৯১ সালে জনসংখ্যা ছিল ১৩,৫০৩ জন। সুতরাং গড় জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ৭%।

বিভাগঃ



ধুমঘাট ব্রিজের পাশে রহস্যময় সুগন্ধ


মীরসরাইয়ের ধুমঘাট যেখানে ফেনী নদীর উপরে নতুন রেল ব্রিজের কাজ চলছে। জায়গাটা আমার বাড়ীর কাছাকাছি হওয়াতে প্রায় সময় ব্রিজের নির্মানকারী মাক্স গ্রুপ কর্মিদের সাথে রাত দুপুরে আড্ডা মারা হয়। যেখানে ব্রিজটি নির্মাণ করা হয় চট্টগ্রাম সাইডে এক সময় গভীর জঙ্গলছিল দিনের বেলাও মানুষ সেখানে যেত না। ব্রিজের কাজ যখন শুরু হয় জায়গাটি পরিস্কার করা হয়। বড় জেনারেটর লাগিয়ে এলাকাটি আলোকিত করা হয়,শত শত ব্রিজের শ্রমিক ইন্জিনিয়ার রাতে দিনে কাজ করে। কিন্তু এর আশে পাশে কোন ফুল গাছ নেই এমনকি দিনের বেলা খুজেও ফুল গাছের দেখা মিলে না। কিন্তু গত দু বছর যাবত রাত যত গভির হয় খুব কড়া ফুলের সুগন্ধি ভেসে উঠে এখানে।




তুমি কি সেই?


তুমি কি সেই প্রভাতের রাঙা আলো যার উষ্ম স্পর্শে ঘুম ভাঙে,
তুমি কি নিশিথ আঁধারের সেই ধ্রুব তারা যাকে দেখে উল্লাসিত হই,
হাজার বছরের প্রতিক্ষায় আছি যার,
তুমিই কি সেই?

তুমি কি নিকুঞ্জের সেই ভ্রমর যার পিছনে অনন্তকালের স্তুপকৃত স্বপ্ন ছুটে বেড়ায়,
তুমি কি নীলাভ জলের সেই প্রতিচ্ছায়া যার হাসিতে ঝরে জোত্‍স্নার আলো,
যার চোখের পাতায় মিশে থাকে রঙিনের চিত্‍কার,তুমিই কি সেই?

তুমি কি সেই অচিনের স্বপ্ন যার হাতছানিতে খঞ্জরিত হই আমি,
তুমি কি সেই যার অস্তিত্বের থাকে মালয় পাহাড়ের ঐ হারানো রুপ,
আজ্ঞাবহ এ শূন্য হৃদয় যার অপেক্ষায়,তুমি ই কি সেই?

শুনছ কী এ চিত্‍কার,ক্রন্দনের জয়ধ্বনি?

বিভাগঃ



মিছে প্রত্যাশা ।।


মাঝরাতে হঠাৎ আকাশ কেঁদে উঠলো,আকাশে আজ অভিমানের মেঘ শব্দহীন আর্তনাদে নিমগ্ন। তাই মাঝ রাতের আঁধারেরা আজ অকাশের কান্না শুনতে পাচ্ছে . . .খুব মন চাইলো বলে ছাদে ছুটে এলাম ।গোটা আকাশ এখন আমার মাথার উপর,ক্রন্দনরত আকাশ তাঁর কান্নার জলে আমায় ভিজিয়ে দিলো . . .ভিজিয়ে দিচ্ছে আমায় আপাদমস্তক।হঠাৎ করেই নিজেকে খুব নিঃশ্ব মনে হচ্ছে।বারিবর্ষণে দিগম্বরের অভিমানকিছুটা হালকা হয়ে এলো . . .আজ আকাশের প্রিয়তম শ্বশী যেনকোথায় হারিয়ে গেছে!আকাশ জানে, অভিমান ভেঙ্গে গেলে আড়াল হওয়া চাঁদ ঠিকই ফিরে আসবে . . .ফিরে আসবে আরেকটি দিনে ক্লান্তির লেশ ঘটিয়ে। কিন্তু আমি জানি, তুমি আর ফিরবে না।ফিরবে না আমার হীয়া তটে . .




তামিস্রান্বিত আমি ।। রাত : ৩:০৫/ তারিখ : ৮.০৭.১৩ ইং/


জানি ঘুমিয়ে আছো,ঘুমানোরই কথা . . .আরো একটি নিদ্রাহীন নৈশ'র মৃত্যু ঘটলো আমার জীবন নামক উপন্যাসে . .নির্ঘুম প্রহরীর ন্যায় প্রয়ানবাঁশী বাজিয়ে আমি আমার বালিশে মাথা রাখবো কিছুক্ষনের মাঝেই . .আঁধার আমায় ইদানিং খুব টানছে। দিবসের প্রথমার্ধে জানালার পর্দা টেনে সূর্য্যের আলোকে বন্দী করে রাখা যেন নিয়মিত অভ্যেসে পরিনত হয়েছে। আর দিবসের ক্লান্তি লগ্নেচার দেয়ালের মাঝথেকে নিজেকে মুক্তকরে নেই অবাধ স্বাধীনতায় . .আমি উন্মাদ হয়ে মিশে যাই রাতের অতিথীদের ভীড়ে ।সময় এগুচ্ছে, এগুবেই তার নিজস্ব গতিতে,অভ্যেস যেন মিশে গেছে সময়ের সাথে .




বিলেতে ঈদ ...


মুসলমান হিসাবে ঈদ হচ্ছে আমাদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব । প্রতি বছর আমরা দুই ঈদের জন্য অধির আগ্রহ নিয়ে অপেক্ষা করে থাকি । ঈদের মাস আসলে আমাদের মধ্যে একটা সাজ সাজ রব পড়ে যায় ঈদ উৎযাপন করার জন্য। যেহেতু বাংলাদেশে ৯৫ ভাগ মুসলমান তাই দেখা যায় পুরো দেশ জুড়েই একটা উৎসব উৎসব আমেজ । ঈদ উপলক্ষ্যে রাষ্ট্রিয়ভাবে অফিস-আদালতে ছুটি ঘোষণা করা হয় যাতে সবাই ঈদের আনন্দ ভাগা ভাগি করে নিতে পারে ।


হাতড়ান

পোষ্টার

ফেসবুকে ইস্টিশন

প্রজন্মের বায়োস্কোপ

বাংলা চলচ্চিত্র- নৃ

  • বড় করে দেখুন
  • কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৩ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর