প্রাণে প্রাণ মেলাবই.....
ব্লগপ্ল্যাটফরম

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

ইস্টিশনের যন্ত্রপাতি



ক্লোজড পুলিশ, একজন চাঅলা ও অনলাইনে আমরা ক’জন


সম্প্রতি বিভিন্ন অপরাধ কর্মকাণ্ডের সঙ্গে পুলিশের নাম উঠে আসছে নিয়ম করে। আগে থেকেই বাংলাদেশের পুলিশ বাহিনী নানা কারণে সমালোচিত। কিন্তু গত কয়েক বছর, বিশেষ করে গেল কয়েক মাসে পুলিশ একের পর এক ঘটনার জন্ম দিয়েছে, যা জাতীয় পরিসরে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। কোথাও তারা নিজেরা অপরাধী, কোথাও অপরাধীকে ছেড়ে দিচ্ছে, কোথাও বা অপরাধের সময় উপস্থিত থেকেও ভূমিকা নিচ্ছে না।




ধর্ষকের প্রেয়সী বলছি..........


আমি এক ধর্ষককে ভালোবেসেছি!
আমি ধর্ষককের হাতে হৃদপিন্ড ধরিয়ে দিয়েছি।
সে হৃদপিন্ডের রক্ত চুষে স্ফিত করেছে নিঃশ্বাস।
আমি তবুও খোলা রেখেছি দেহ মন সব,সব!

আমি এক লম্পটকে কাছে টেনেছি,
যে রাতভর দ্বাদশী কিশোরীর দেহ খুবলে খেয়ছে।
অনায়েসে আমার শাড়ীর আঁচলে মুখ মুছেছে।
আমি বাহুযুগল উন্মুক্ত করে রেখেছি সব সময়।
ধর্ষিতার আর্তনাদ শুনে চুপটি রয়েছি।

আমি ওই ধর্ষককে ঠাঁই দিয়েছি বিছানায়,
তার গায়ে লেগেছিল যুবতীর লাল রক্ত!
আজ আমার গায়েও ধর্ষিতার রক্তের পচা গন্ধ।
ধর্ষকটির বুকে খঞ্জর বসাতে ইচ্ছে হয় না আমার।
আমি তাকে হৃদয়ে বড় যতনে লালন করছি।
হ্যা ! আমি ধর্ষককেই ভালোবেসেছি।

বিভাগঃ



গিনিপিগ


"মানুষের হৃদয় কখনই গিনিপিগ হতে পারে না যে, কেউ তাকে এক্সপেরিমেন্ট এর কাজে ব্যবহার করবে" -- কে বলেছে এটা?
মানি না।

ভাল লাগছে না? মন খারাপ? মানসিক অবস্থা খারাপ? কোন ঝড়ের মাঝে আছি?
চিন্তা নাই। কাউকে কাছে টেনে কিছুদিন রাখি।আমার খারাপ সময় গুলো তার সহায়তায় দূরে ঠেলতে চেষ্টা করি।
যদি স্বাভাবিক হই তবে সেই মানুষ কে ছেড়ে দিই।কারন আমার এক্সপেরিমেন্ট সফল হয়েছে।নতুন কাউকে খুজতে থাকি উন্নত এক্সপেরিমেন্ট এর জন্য।

ওকে। এক্সপেরিমেন্ট এ সফল হন নি তো? তবে গিনিপিগ চেঞ্জ করি। নতুন কাউকে ধরি। আগের গিনিপিগের কথা কে ভাবতে বলেছে আমাকে? না ভাবলেই তো হয়।
ভুলে যাই। সে বাঁচুক আর মরুক আমার কি?




এখন বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের সংখ্যা কমে যাচ্ছে, আর বাড়ছে দেহফ্রেন্ডের সংখ্যা! (দ্বিতীয় পর্ব: একটি চাক্ষুষ-ঘটনা)


এখন বয়ফ্রেন্ড-গার্লফ্রেন্ডের সংখ্যা কমে যাচ্ছে, আর বাড়ছে দেহফ্রেন্ডের সংখ্যা! (দ্বিতীয় পর্ব: একটি চাক্ষুষ-ঘটনা)
সাইয়িদ রফিকুল হক




সংখ্যালঘু যুবকের হাতে ৫ বছরের মুসলিম কন্যা শিশু ধর্ষিত


রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার খাড়তা গ্রামে ৫ বছরের এক মুসলিম কন্যা শিশুকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। আজ শনিবার সকালের এ ঘটনায় জড়িত থাকারঅভিযোগে পুলিশ একই এলাকার ★★[পলান চন্দ্র ওরফে কটুকে (৪২) ]★★★গ্রেপ্তার করেছে।
মামলা সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা
খাড়তা গ্রামের পলান চন্দ্র ওরফে কটু’র
বাড়ির পাশে আজ শনিবার বেলা ১১টার
দিকে প্রতিবেশী মুসলিম কন্যা শিশু খেলা করছিল।
এ সময় তাকে গাঁজর দেওয়ার লোভ দেখিয়ে
লম্পট কটু তার বাড়িতে ডেকে নিয়ে যায়।
পরে শিশুটিকে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায় কটু।
শিশুটি সেখান থেকে ছাড়া পেয়ে
বাড়িতে গিয়ে তার মাকে বিষয়টি
জানায়। এরপরে শিশুটির অবস্থার অবনতি




৪৬ বছরেও বাঙালী হতে পারিনি সংখ্যালঘু হয়ে রইলাম


ওরা আমাদের এখন আর বাঙ্গালি বলেনা,
সংখ্যালঘু বলে।
_________________________________________
আগে একটু প্রাথমিক চিকিৎসা তারপর
ডাক্তার বাড়ী.....
হায়দার হোসেনের একটা গানকে একটু
অন্যভাবে উপস্থাপন করতে চাই....
কি দেখার ছিল কি দেখছি.....কি
বলার ছিল কি বলছি
কি ভাবার কথা কি ভাবছি....কি
শোনার কথা কি শুনছি
অর্ধশত পার না হতেই
স্বাধীনতা রোগে ভুগছি
স্বাধীনতা কি ধর্ম দেখে
বুঝে শুনে পথ চলা?
স্বাধীনতা কি বাঙগালিকে
সংখ্যালঘু বলা?
স্বাধীনতা কি ঘরবাড়ী ভেঙ্গে
পথে নামিয়ে দেয়া?
স্বাধীনতা কি কোন দলের দেখে
বিচারে হাত দেয়া?
কি দেখার ছিল কি দেখছি কি
বলার ছিল কি বলছি
তবে বাবারা কেন প্রাণ দিয়েছিল




'ছাত্র ইউনিয়ন কী ও কেন?'


পাঠ বদলে যায় সম্ভবত সময়ের ফেরে। একটা ছোট পুস্তিকায় লেখা কিছু শব্দসমাহার পড়ানো হয়ে থাকে নবীন রাজনীতিকদের। সেখানেই ছাত্র ইউনিয়নকে খুঁজে পাওয়া যায় বলেই আমাদের ধারণা। সেই ধারণাকে সামনে রেখেই রাজনীতি করতে নেমেছি, রাজনীতি করেছি। যখন দেখেছি- সেই পরিচিতির বাইরে কেউ ছাত্র ইউনিয়নের পরিচয় নতুন করে দিতে চেয়েছে- তখনই প্রতিবাদ করেছি। যেমন- ছাত্র ইউনিয়ন বলতে আমি বুঝি প্রগতির সংগঠন, যুক্তির সংগঠন। সকল প্রকার সন্ত্রাস, পেশীশক্তির বিরুদ্ধে সোচ্চার সংগঠন। কিন্তু সেই ছাত্র ইউনিয়নেরই সাবেক-বর্তমানরা যখন শুনিয়েছে- ছাত্র ইউনিয়ন হচ্ছে সেই সংগঠন- যার সম্মেলনে ছুরি চালাচালি হয়- তখন প্রতিবাদ করেছি। যেই ছাত্র ইউনিয়নের সম

বিভাগঃ



লেখক শিবির সম্পর্কে আহমদ ছফা’র মন্তব্য


প্রথমে দেখে নিই বাংলাপিডিয়ার ভাষ্যমতে ‘বাংলাদেশ লেখক শিবির’এর ইতিহাস। লিংক এখানে

বিভাগঃ



মহাভারতে রাজনীতি ও রাষ্ট্রচিন্তাঃ ২



কৃষ্ণ ব্যতীত মহাভারতের অপরাপর রাজনৈতিক চরিত্রগুলোঃ

(কর্ণ,ভীষ্ম ও শকুনি)


 

খয়বর কথা বলো…





আমি রিক্সাওয়ালাকে একশ টাকা দেব না বলে সারা বিকাল দাড়িয়েছিলাম একটা ফায়ার সার্ভিসের সামনে


আমি রিক্সাওয়ালাকে একশ টাকা দেব না বলে
সারা বিকাল দাড়িয়েছিলাম একটা ফায়ার সার্ভিসের সামনে।
আমি ভাবছিলাম এখন শহরের কোথাও আগুন লাগলে
ফায়ারম্যানরা কি করবে? কষ্টে থাকা লোকেরা কাছেই কোথাও হাঁটাহাঁটি করছিল।
মাত্র আজকে দুপুরেই ছায়াটাকে বলছিলাম, “ তুমি আবার আসছ?”
ছায়া বলল, “ আপনে জানতেন না আমার ফুপাতো বোনের মেয়ের বিয়ে ছিল গতমাসে?
যাই হোক আপনার ফ্যামিলিতে কোন অ্যাকসিডেন্ট হইসে রিসেন্টলি?”
আমার খুব রাগ হয় যে সে এতটা ইনফরমেশন ডেপ্রাইভড হয় কি করে।
আমি রাগ নিয়ে লেকপারে গিয়ে দেখি মাওড়া পোলাপান গান গাইতেসে।
পিছনে চায়ের কাপ নিতে গিয়ে দুটা ভদ্রলোকের সাথে আমার ছায়াটার ঝগড়া শুরু হয়।

বিভাগঃ



স্বপ্ন , ইচ্ছা এবং আমরা


স্বপ্ন খুব ছোট একটি শব্দ । শব্দটি ছোট হলেও শক্তি অনেক অনেক বেশি । যেমন ধরুন আপনার স্বপ্ন আপনি একজন লেখক হবেন হুমায়ুন আহমেদ স্যার এর মত বিখ্যাত লেখক । আপনি লিখা লিখি শুরু করলেন আপনার যোগ্যতা থাকলে আপনি বড় লেখক অবশ্যই হবেন । এক্ষেত্রে আপনার স্বপ্ন আপনাকে আগায় যেতে আগ্রহী করবে ।

বিভাগঃ



দক্ষ মানব শক্তি তৈরিতে বাংলা ভাষার পাশাপাশি ইংরেজি মাধ্যম অবশ্যম্ভাবী


গত বছর সারাদেশে ২৯ লাখের বেশি ছাত্রছাত্রী প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিল। এর মধ্যে ইংরেজী ভার্সনে পরীক্ষা দেয় ৫ হাজারেরও কম শিক্ষার্থী। ২৯ লাখের বিপরীতে মাত্র ৫ হাজার! এই ৫ হাজার সন্তানের বাবা-মাকে অভিনন্দন অতি দূরদর্শী একটি সিদ্ধান্ত তাদের সন্তানের বেলায় নিতে পারায়। ৫ হাজারের মধ্যে আমাদের স্কুল থেকে ১৬ জন পরীক্ষা দেয়। সবাই ‘অ’ পায়, ৬ জন ‘অ+’ পায়। তার মানে হলো, বাকি বিষয়গুলোর পাশাপাশি এই ৬ জন বাংলাতেও ৮০-এর বেশি পেয়েছে!




প্যারিস-হেলেন ঐতিহাসিক প্রেম


পৃথিবীর ইতিহাসে খুব কম নারীই
আছেন, যাদের নিয়ে আজকের
আধুনিক যুগেও আলোচনা হয়। আর
এমন প্রেমকাহিনীর সংখ্যাও খুব
বেশি নয়, যেগুলো আজো
মানুষকে আলোড়িত করে,
আন্দোলিত করে। কিন্তু ট্রয়ের
হেলেন আর তার সঙ্গে যুবরাজ
প্যারিসের প্রেমকাহিনী সভ্যতার
ইতিহাসে একেবারেই অন্যরকম
স্থান দখল করে আছে। ভালোবাসা
এবং জিঘাংসা, সৃষ্টি ও ধ্বংস, রাজকীয়
বিশ্বাস আর শঠতা যে হেলেনকে
হাজার বছরের রহস্যময়ী নারীর
খেতাব দিয়েছে; যার প্রেমের
জন্য ১২ বছরের রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ
চলে। এমন প্রেম পৃথিবী
অস্বীকার করে কী করে?
খ্রিস্টপূর্ব ১২১৪ অব্দ। স্পার্টার রাজা
টিনডারিউস এবং তার স্ত্রী লিডার ঘর
আলোকিত করে জন্ম নেয় এক

বিভাগঃ

পোষ্টার

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৫ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর