নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 0 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

নতুন যাত্রী

  • সুশান্ত কুমার
  • আলমামুন শাওন
  • সমুদ্র শাঁচি
  • অরুপ কুমার দেবনাথ
  • তাপস ভৌমিক
  • ইউসুফ শেখ
  • আনোয়ার আলী
  • সৌগত চর্বাক
  • সৌগত চার্বাক
  • মোঃ আব্দুল বারিক

আপনি এখানে

ফিরে দেখা: দ্বিজাতিতত্ত্ব, দাঙ্গা আর দেশভাগ ১


'৪২ সালে নাজিমুদ্দিনের নেতৃত্বে বাংলায় গঠিত হয় মুসলিম লীগ সরকার । বাংলায় খোলাখুলি হিন্দু-মুসলিম দাঙ্গা সেই সময় থেকে শুরু । গ্রামে গ্রামে সহিংসতার ঢেউ আছড়ে পরতে শুরু করেছিল । হিন্দুদের উপর পরিকল্পিত আক্রমন সংগঠিত হলেও ব্রিটিশ শাসন থাকার কারণে বাড়াবাড়ি তেমন আকার ধারণ করেনি , কেননা থানাগুলোতে হিন্দু পুলিশের সংখ্যা নেহাত কম ছিল না । এর আগে গ্রাম্য জীবনে হিন্দু-মুসলমান আপাত শান্তিতে বাস করলেও তাদের মধ্যে কাজিয়া-ঝগড়া লেগেই থাকতো , তবে তা গ্রামের স্থানীয় নেতৃত্ব মিটিয়ে দিত । পাকিস্তানের পক্ষে দাঁড়ানো নমঃশুদ্র নেতা যোগেন মন্ডল , দেশভাগের সময়ে ইসলামী সহিংসতা দেখে পূর্ব পাকিস্তান ছেড়ে কলকাতা আসতে বাধ্য হয়েছিলেন, একথা নিশ্চই পাঠকদের মনে করিয়ে দিতে হবেনা আশা করি । আচ্ছা এই যোগেন মন্ডলের ব্যাকগ্রাউন্ড কি, জানেন ? আসুন একটু জেনে নি:
সুভাষচন্দ্র বসুর প্রিয়ভাজন ছিলেন এই যোগেন মন্ডল । সেই আমলে কলকাতা কর্পোরেশনের কাউন্সিলার নির্বাচিত হন, এমনকি ইংরেজ আমলে নমঃশুদ্র সমাজ থেকে প্রথম ও শেষ নির্বাচিত কাউন্সিলর এই যোগেন মন্ডল । সুভাষচন্দ্র বসুর সহায়তায় বরিশালের সাধারণ নির্বাচনে বিখ্যাত কংগ্রেসী নেতার অশ্বিনীকুমার দত্তের ভাইপো, সরল দত্তকে হারিয়ে ইলেকশনে জয়ী হয়েছিলেন সাধারণ সিটে(সংরক্ষিত নয়), ১৯৩৭ এ । পুরোটাই সম্ভব হয়েছিল সুভাষচন্দ্র বসুর সহায়তায় । শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি-ফজলুল হক কোয়ালিশনের বিধায়ক ভাঙিয়ে মুসলিম লীগেও এনেছিলেন এই যোগেন মন্ডল । এর ফলে গভর্নর ফজলুল হককে বরখাস্ত করে । মঞ্চে আসে নাজিমুদ্দিন । আম্বেদকর আর যোগেন মন্ডল অবশ্য বর্ণ-হিন্দুদের বিপক্ষে সব সময়েই সরব ছিল ।

পাকিস্তান কায়েম করতে হলে হিন্দুদের মধ্যে ফাটল তৈরী করা দরকার, এটা যেমন ইংরেজ সরকার বুঝেছিল, ঠিক তেমনি বুঝেছিল মুসলিম লীগ । শ্রেণীতে বিভক্ত হিন্দু সমাজের একাংশের সমর্থন পাকিস্তান আদায়ের জন্য সফল হাতিয়ার । হিন্দু সমাজকে একত্রিত করার প্রয়াসে সকল জেলায় একসঙ্গে পংক্তি ভোজনের মত প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে দাড়িয়েছিল যোগেন মন্ডল আর আম্বেদকার । তাদের বক্তব্যের মধ্যে একটি প্রচলিত প্রপাগ্রান্ডা ছিল তফশিলিরা হিন্দু নয়, তারা পৃথক জাতি এবং অবশ্যই তাদের 'পাকিস্তান' গঠন সমর্থন করা উচিত । সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছড়ালো বাতাসে আর এর পূর্ন সুযোগ নিল মুসলমান জনগোষ্ঠি । কমুনিস্টরাও বহুজাতি তত্ত্বে সুর মেলালো আর মুসলিম লীগ এই লজিক স্বাদরে লুফে নিল ! ১৯৪৬ সালের নির্বাচনে ফজলুল হকের কৃষক-প্রজা পার্টি মুসলমানদের জন্য সকল সিটের মধ্যে পেল মাত্র ৫ টা সিট বাকি পেল মুসলিম লীগ । দেশ তখন ভাগ না হলেও পশ্চিমবঙ্গের মুসলমানের ভোট গেল সর্বাত্বক মুসলিম লীগের পক্ষে । যোগেন মন্ডল সিডিউল কাস্ট ফেডারেশনের হয়ে সিট জিতলেও আম্বেদকার হেরে গেলেন । সেই সময়ের প্রেক্ষাপটে বিশ্বযুদ্ধে মিত্রশক্তি জয়ী হলেও ইংরেজ রাজশক্তির টালমাটাল অবস্থা ছিল, তাই ভারত থেকে ঔপেনিবেশিকতার হাত তুলে নেওয়া ছিল অবশ্যম্ভাবী ।

ভারতে ক্যাবিনেট মিশন এসে পৌঁছালো ক্ষমতা হস্তান্তরের আলোচনা করতে, কিন্তু ক্যাবিনেটের প্রস্তাবে কংগ্রেস এবং মুসলিম লীগ কেউই একমত হলনা । গণ-পরিষদের ভোট ডাকা হলো, এবং লম্পট নেহেরু হলো অন্তর্বর্তী সরকারের প্রধানমন্ত্রী । ১৯৪৬ এর ১৬ই অগাস্ট বাংলার মুসলিম লীগ সরকার সুরাবর্দির নেতৃত্বে প্রতিবাদ ডাকলো, যা প্রকারভেদে 'ডাইরেক্ট একশন ডে' হয়ে উঠলো । স্লোগান উঠলো চারিদিকে :'হাতমে বিড়ি, মু মে পান, লড়কে লেঙ্গে পাকিস্তান' ! বাংলা দেখল নৃশংস হত্যালীলা ! হত্যা, ধর্ষণ আর লুন্ঠনে জর্জরিত হলো বাংলা ! অগণিত হিন্দুর রক্তপাতে শুরুর দিকে বাংলার হিন্দু সমাজ হকচকিয়ে পরলো । প্রাথমিক ধাক্কা সামলে উঠে শুরু হলো হিন্দু-শিখদের পাল্টা দেওয়া । এর প্রতিফলনে নোয়াখালীতে হলো হিন্দু হত্যাযজ্ঞের ভয়ঙ্কর ধ্বংসলীলা, সাথে চলল অবাধে নারী ধর্ষণ, ধর্মান্তকরণ । নোয়াখালীর পাল্টা হলো বিহারে, আর সারা ভারত জুড়ে দাঙ্গার দাবানল লেলিহাহীন আগুন ছড়িয়ে দিল ! জিন্নাহ প্রমাদ গুনলো । এতটা বোধহয় স্বপ্নেও ভাবতে পারেনি জিন্নাহ ! অতএব সিধান্ত বদল এবং কেন্দ্রীয় মন্ত্রীসভায় যোগদানের সম্মতি । অন্তর্বর্তী সরকারে জিন্ন্হার কলকাঠিতে তফশিলি প্রতিনিধি হিসেবে বাদ পরলো আম্বেদকার আর কৌশলে মুসলিম লীগের কোটায় চলে এলো যোগেন মন্ডল ।

(চলবে.........................)

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

রাজর্ষি ব্যনার্জী
রাজর্ষি ব্যনার্জী এর ছবি
Offline
Last seen: 15 ঘন্টা 43 min ago
Joined: সোমবার, অক্টোবর 17, 2016 - 1:03অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর