নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 3 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • আলমগীর কবির
  • মিঠুন বিশ্বাস
  • দ্বিতীয়নাম

নতুন যাত্রী

  • চয়ন অর্কিড
  • ফজলে রাব্বী খান
  • হূমায়ুন কবির
  • রকিব খান
  • সজল আল সানভী
  • শহীদ আহমেদ
  • মো ইকরামুজ্জামান
  • মিজান
  • সঞ্জয় চক্রবর্তী
  • ডাঃ নেইল আকাশ

আপনি এখানে

ড: জাফর ইকবাল একজন ভাল মানুষ কিন্তু ভাল মুসলমান নন


দেশের বরেণ্য শিক্ষাবিদ ড: জাফর ইকবালের ওপর মাদ্রাসা শিক্ষিত ফয়জুল সন্ত্রাসী হামলা করেছে যা নিয়ে সারা দেশে তোলপাড়। সবাই বিষয়টাকে জঙ্গি হামলা বলে চালিয়ে দিলেও , স্বয়ং ফয়জুল বলেছে - জাফর ইকবাল ইসলামের শত্রু , নাস্তিক , তিনি ইসলামের নবীদের ব্যাঙ্গ করেছেন , তাই তাকে হত্যা করতে চেয়েছিল।সুতরাং দরকার এখন জানা ফয়জুল যে কারনে হত্যা করতে চেয়েছিল , সেটা ইসলাম আসলেই সমর্থন করে কি না। কোন কিছু না জেনে বা জানতে না চেয়ে , ঢালাওভাবে একটা ঘটনাকে জঙ্গি ঘটনা বলে চালিয়ে দিয়ে পার পাওয়ার দিন এই মিডিয়ার যুগে শেষ। সময় এসেছে সত্যকে স্বীকার করার।

কোরান হাদিসে পরিস্কার বলা আছে- ইসলামের সমালোচনা , মুহাম্মদের সমালোচনা বা নবীদের সমালোচনা করা বা তাদের নিয়ে ব্যঙ্গ করার শাস্তি মৃত্যুদন্ড। যেমন ---

সুরা আহযাব-৩৩: ৫৭:যারা আল্লাহ ও তাঁর রসূলকে কষ্ট দেয়, আল্লাহ তাদের প্রতি ইহকালে ও পরকালে অভিসম্পাত করেন এবং তাদের জন্যে প্রস্তুত রেখেছেন অবমাননাকর শাস্তি।

উক্ত ৩৩:৫৭ আয়াতের প্রেক্ষাপট হলো - মুহাম্মদ নানা কায়দা করে তারই পালক পুত্র জায়েদের স্ত্রী জয়নাবকে যখন বিয়ে করে ঘরে তোলে তখন ইহুদি খৃষ্টানরা তো বটেই , এমন কি অনেক নব্য মুসলমানও মুহাম্মদের সমালোচনা করছিল , তারা বলা বলি করছিল মুহাম্মদ হলো একটা নারী লিপ্সু লুইচ্চা মানুষ। মুহাম্মদের দাবী সে এই বিয়ে করেছিল আল্লাহর আদেশে। সুতরাং এই ধরনের সমালোচনাটা তার কাছে তার নিজেকে ও তার আল্লাহকে কষ্ট দেয়ার শামিল। তখনই মুহাম্মদ উক্ত আয়াত প্রচার করে সমালোচনাকারীদেরকে ভয় দেখাচ্ছিল। কিন্তু তাতেও কাজ না হওয়াতে , অবশেষে উক্ত আহযাব সুরার পরের আয়াতে মুহাম্মদ প্রচার করে ---

সুরা আহযাব- ৩৩: ৬১: অভিশপ্ত অবস্থায় তাদেরকে যেখানেই পাওয়া যাবে, ধরা হবে এবং প্রাণে বধ করা হবে।

অর্থ অতি পরিস্কার , মুহাম্মদকে যারা সমালোচনা করবে তথা ইসলামকে যারা সমালোচনা করবে , তাকে যেখানেই পাওয়া যাবে সেখানেই হত্যা করতে হবে। অনেক গুলো সহিহ হাদিসে বর্নিত আছে , মুহাম্মদকে সমালোচনাকারী বা তাকে নিয়ে ব্যঙ্গ কবিতা রচনাকারী কবি আশরাফ, আসমা বিনতে মারওয়ান ইত্যাদিকে মুহাম্মদ নিজেই ঘাতক পাঠিয়ে হত্যা করে।

প্রশ্ন হলো ড: জাফর ইকবাল, কোন দলে পড়েন ? দেখা যাচ্ছে , গত বেশ কয় বছর ধরে দেশের দেশের বিভিন্ন আলেম , হুজুর , মুমিনেরা নানা ভাবে , ওয়াজে , ফেসবুকসহ সকল রকম মিডিয়াতে ড: জাফর ইকবালকে একজন মুক্তমনা ও নাস্তিক হিসাবে চিহ্নিত করে আসছে। এ কারনে তারা তাকে নানা রকম হুমকি ধামকি এমন কি প্রান নাশের হুমকি পর্যন্ত দিয়ে এসেছে। সর্বশেষে " ভুতের বাচ্চা সোলেমান" নামের একটা বই লিখে তিনি দেশের সকল ধর্ম প্রান মুমিন বান্দাদের বিরাগভাজন হন।

ড: জাফর ইকবাল ব্যাক্তিগতভাবে একজন ভাল মানুষ,কিন্তু মুক্তমনের কারনে , ইসলামের সমালোচনা সহ নবীদের নিয়ে ব্যঙ্গ করার কারনে তিনি কোনভাবেই একজন ভাল মুসলমান না। ইসলামের দৃষ্টিতে তিনি মুনাফিক এবং মুনাফিকের শাস্তি যে মৃত্যুদন্ড সেটা সবাই জানে। পক্ষান্তরে, ফয়জুল একজন খাটি মুমিন, যে কোরান হাদিসের বিধান অক্ষরে অক্ষরে মেনে চলে , আর সেই কারনেই সে ড: জাফর ইকবালকে হত্যা করতে চেয়েছে, যার অর্থ সে একজন ভাল মুসলমান, কিন্তু যারা ইসলামের প্রকৃত স্বরূপ জানে না , তাদের কাছে সে একজন হত্যাকারী তথা খারাপ মানুষ।

সুতরাং ইসলামের প্রকৃত স্বরূপ হয় জেনে ,বা না জানার ভান করে , আজকে সবাই এই হত্যা প্রচেষ্টাকে সবাই জঙ্গি হামলা বলে প্রচার করে নিজেদের গা বাঁচাতে চাইছে। তারা ফয়জুলের কর্মকান্ডকে ইসলাম বিরোধী কর্মকান্ড বলে প্রমান করতে চাইছে। গত কয় বছরে এভাবেই বিভিন্ন সময় নানা মুক্তমনের মানুষ যেমন - অভিজিৎ, রাজিব, নিলয় নীল সহ আরও অনেককে ঠান্ডা মাথায় আক্রমন করে নির্মমভাবে হত্যা করেছে ফয়জুলের মত খাটি মুমিনরা । আর প্রতিবারই মিডিয়া সহ সকল সাধারন মানুষ এসবকে জঙ্গি হামলা বলে পাশ কাটাতে চেয়েছে , বুঝাতে চেয়েছে ও নিজেরাও প্রবোধ পাওয়ার চেষ্টা করেছে , এসবের সাথে ইসলামের কোনই সম্পর্ক নেই।

কিন্তু এভাবে আর কতদিন ? নিজের ঘরে আগুন লেগেছে , কিন্তু চোখ বন্দ করে যদি দাবী করি , ঘরে আগুন লাগে নাই , তাহলে কি ঘর আগুন থেকে বাঁচবে ?

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

কাঠমোল্লা
কাঠমোল্লা এর ছবি
Offline
Last seen: 2 দিন 17 ঘন্টা ago
Joined: শুক্রবার, এপ্রিল 8, 2016 - 4:48অপরাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর