নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 0 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

নতুন যাত্রী

  • সুশান্ত কুমার
  • আলমামুন শাওন
  • সমুদ্র শাঁচি
  • অরুপ কুমার দেবনাথ
  • তাপস ভৌমিক
  • ইউসুফ শেখ
  • আনোয়ার আলী
  • সৌগত চর্বাক
  • সৌগত চার্বাক
  • মোঃ আব্দুল বারিক

আপনি এখানে

তবলীগ হেফাজত: যত পথ তত মত।


হেফাজতে ইসলাম এবং তবলীগ জামাত আজ ভারত থেকে আগত মৌলবি মাওলানা সা'দ কে কেন্দ্র করে নিজেদের মধ্যে একহাত দেখে নিয়েছে। তবলিগের বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বে বক্তা হিসেবে মাওলানা সাদ কে নিয়ে আসা হয়। উনি মূলত তবলিগের পক্ষে কথা বলে থাকেন।

বাঙলাদেশে শুধু ইসলাম ধর্মেরই অনেকগুলো শাখাপ্রশাখা রয়েছে। কেউ হানাফি, কেউ শাফেয়ী, কেউ হাম্বলি কিংবা মোহাম্মদী। আহলে হাদিস, আহলে সুন্নত, দাওয়াতে ইসলামী, আহমদিয়া মিশন, চরমোনোই, ফুরফুরা, জাকের পার্টি, আনসারুল্লাহ বাঙলা, হরকাতুল জেহাদ, জমায়েতে মুজাহিদিন পার্টি, ইসলামিক স্টেট ফর বাংলাদেশ, আল্লারদল, সদ্যজাত হেফাজত, জামাতে ইসলামীসহ অনেক দলই রয়েছে এখানে।
এতগুলো দল, সবাই সঠিক। আল্লা এবং রসুলের মত-পথে চলার জন্য কোরান ও হাদিস মেনেই তারা চলেন। কিন্তু তাদের মধ্যে রয়েছে নানান বৈষম্য। কেউ নামাজে হাত বুকে বাঁধবে, কেউ নাভির নিচে। কেউ নামাজের পর হাত তুলে দোয়া করে আবার কেউ এটাকে বিদয়াত বলে। কেউ মিলাদ পড়ে কিন্ত দাঁড়িয়ে সালাম পড়েনা। আবার কেউ মিলাদটাকেই বিদয়াত বলে।

আমি দেখেছি, মোহাম্মদি (আহলে হাদিস) অধ্যুষিত এলাকায় হানাফী কেউ নাভির নিচে হাত বাঁধার কারণে তাকে মসজিদ থেকে বের করে দেয়া হয়েছে। কোরানে আছে "লাকুম দ্বীনুকুম ওয়ালিয়াদিন" (তোমাদের ধর্ম তোমাদের কাছে, আমাদের ধর্ম আমাদের কাছে। কিন্তু মুসলিমদের ভিতরে যে তীব্র বিদ্বেষ রয়েছে হিন্দু কিংবা অন্য কোন ধর্মের বিরুদ্ধে, একজন মুসলিম যেভাবে একজন হিন্দুকে ঘৃণা করে; তারচেয়েও কয়েকগুণ বেশি ঘৃণা করে মুসলিমদের অন্য দলের প্রতি। আহলে হাদিস বলে থাকে হানাফি মুসলিমরা হিন্দুদের চেয়েও নিকৃষ্ট। হানাফিরা বলে মোহাম্মদিরা লা-মাজহাবী।

ইসলামের জন্ম থেকেই অন্য ধর্মের পাশাপাশি নিজ ধর্মের মধ্যের সংঘাতগুলোতে লক্ষ্য লক্ষ্য মানুষ নিহত হয়েছে। মুতা'র যুদ্ধ, সিফফিনের যুদ্ধ, কারবালার যুদ্ধ, বর্তমানের শিয়া-সুন্নি যুদ্ধ, আইসিস, বোকো হারাম কিংবা আল শাবাবের যুদ্ধ তার উদাহরণ।

ইসলামী এই দল ও উপদলগুলোর প্রত্যেকেরই আলেম, মুফতি, মোহাদ্দেস তথা নেতা রয়েছে। তারা সবাই নিজ নিজ দলের সমর্থনে কোরান ও হাদিসের ব্যাখ্যা (ফতোয়া) তৈরি করে।

আবুল মনসুর আহমদ তার নায়েবে নবি গল্পে বলেছিলেন; "সোয়াব তো নয়; যেন হাদিয়াটাই মূল"
মোহাম্মদ বলেছে "আমার উম্মতের মধ্যে ৭৩টি দল বা উপদল হবে এবং তন্মদ্ধে একটি দলই জান্নাতে প্রবেশ করবে"।
অনেকের মনে প্রশ্ন হতে পারে, কোরান অনুযায়ী আল্লা এক, নবী মোহাম্মাদ এক তবে এত বিধিনিষেধ, এত তারতম্য কেন? কেন এত বৈষম্য।
কোন আলেম বা মুফতিকে প্রশ্ন করা যেতে পারে এ বিষয়ে।
তবে আমার ব্যক্তিগত মত হচ্ছে;
এক ইসলামের মধ্যে এত সংঘাত, এত তারতম্য সবই কোন বুদ্ধিমান এবং ধূর্ত ব্যক্তিবর্গের সৃষ্টি। যার কারণে এরা নিজেদের মধ্যে মারামারি, হানাহানি করতেই থাকে/থাকবে। যার ফলে মূল কোরান কিংবা হাদিসের ধারেকাছেও কেউ যাবে না। মূলতঃ এ ধরণের ধর্মীয় নেতারা আরবি ভাষা জানেন, বুঝেন এবং তারা এটাও বুঝেন যে, সাধারণ মুসলিমরা সরাসরি কোরান কিংবা হাদিসের কাছে গেলে স্পষ্ট বুঝতে পারবে এই আসমানি কিতাব কতখানি আসমানি কিংবা এই হাদিস আসলে কী শেখায়।
ভয় হয় যদি ব্যবসা নষ্ট হয়। ভয় হয় যদি লোকে প্রশ্ন করে।

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

জাকারিয়া হুসাইন
জাকারিয়া হুসাইন এর ছবি
Offline
Last seen: 1 month 2 ঘন্টা ago
Joined: শুক্রবার, মার্চ 3, 2017 - 10:51পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর