নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    There is currently 1 user online.

    • ইউসুফ শেখ

    নতুন যাত্রী

    • সুশান্ত কুমার
    • আলমামুন শাওন
    • সমুদ্র শাঁচি
    • অরুপ কুমার দেবনাথ
    • তাপস ভৌমিক
    • ইউসুফ শেখ
    • আনোয়ার আলী
    • সৌগত চর্বাক
    • সৌগত চার্বাক
    • মোঃ আব্দুল বারিক

    আজান


    আজান নিয়ে আমি আর কিছু বলতে চাইনা। তার কারন এই নয়, যে আমি সোনু নিগম নই, আর কিছু বলে পরে তার প্রায়াশ্চিত্য করার জন্যে মাথা ন্যাড়া করতে হবে। আমি সাধারন মানুষ, ফেইজবুকিং করে আমার মত কিছু মানবসন্তানের সাথে বেকার সময় কাটাই। তার পরেও, আজান, নামাজ, হজ, জাকাত, কালেমা ইত্যাদি নিয়ে কিছু সোজাসাপ্টা কথা বলায় আমার পাঁচহাজার বন্ধুসহ দশ বছরের পুরাতন একটা একাউন্ট বন্ধ হয়ে গেছে। সেইসাথে ধর্ম-কর্ম ছাড়াই প্রচুর আধ্যাত্মিক, ইহজাগতিক এবং পারলৌকিক গুরুত্বপূর্ন বিষয় সংক্রান্ত কিছু গভীর চিন্তাভাবনা আর উদ্বেগের কথাবার্তাও হারিয়ে গেছে, সম্ভবত চিরতরে। আমি নতুন একাউন্ট খোলা নিয়ে চিন্তিত না। লেখা হারানোর ভয়ও আর পাইনা। ত

    গাওয়াল (উপন্যাস: পর্ব-চৌদ্দ)



    শোভনের দেওয়া একটি ম্যাগাজিন উল্টে-পাল্টে দেখছে নীলু। বিভিন্ন দেশের ভাস্কর্য এবং চিত্রকর্ম বিষয়ে ইংরেজি ভাষার বেশ মোটা একটি ম্যাগাজিন। শোভন নীলুকে ম্যাগাজিনটা দিয়েছে পড়ার উদ্দেশে নয়, ছবি দেখার জন্য, যাতে ভাস্কর্য বিষয়ে নীলুর জ্ঞান আরো বিস্তৃত হয়। অসংখ্য ভাস্কর্য এবং চিত্রকর্মের ছবি আছে ম্যাগাজিনটাতে। নীলু পাতা উল্টে-পাল্টে ছবি দেখছে আর ভেতরের লেখা পড়ার চেষ্টাও করছে, কিন্তু শক্ত শক্ত ইংরেজির মানে বুঝতে পারছে না সে। তার ইংরেজির দৌড় খুব বেশি দূর নয়। এই ইংরেজির জন্যই তো সে মাধ্যমিক পাশ করতে পারেনি!

    এখানে রয়েছে মিথ্যে মেধা বহনকারী একদল ছাত্র নামে অছাত্রের দল


    আমি বরাবর'ই কোটা সংস্কারের পক্ষে ছিলাম, এখনও আছি। তবে বাতিল নয়,এ নিতান্তপক্ষেই সরকারের এক কালো ও নির্মম সিদ্ধান্ত। সবার আগে যা কলঙ্কীত করেছে মুক্তিযোদ্ধা পরিবার'কে।

    তাইবলে, যারা এই প্রতিবাদ'কে প্রশ্নবিদ্ধ করার আপ্রাণ চেষ্টা করেছে তাদের পক্ষে ছিলাম না।
    আমি দেখেছি অহিংস আন্দোলনের নাম ধারণ করে হাতে বাঁশ,লাঠি ও লৌহ পদার্থ বহন করে বারবার শো-ডাউন করতে।
    দেখেছি মুখোশ পরে বারবার উস্কানি মূলোক বক্তব্য দিতে,এবং এই বক্তব্য'কে কোন কিছু না ভেবেই সায় দিতে সাধারণ কোমলময়ি ছাত্রছাত্রী বৃন্দ।
    বারবার বলেছিলাম এর ভেতরে লুকিয়ে আছে বিষাক্ত সাপ।সেই সাপের বিষের প্রকট আঘাতে আজ এই অবস্থা।

    কোটা সংস্কার আন্দোলন: জয় পরাজয়


    আমাদের পূর্ব্ব পুরুষগণ তাদের অভিজ্ঞতা থেকে জানিয়েছিলেন, 'ঘর পোড়া গোরু; সিঁদুরে ভয় পায়।'
    হাল আমলে এটি অন্য উপমায় প্রকাশ পেয়েছে, ' চুন খেয়ে মুখ পুড়লে, দই দেখলে ভয় করে।'
    কোটা বাতিলের খবর প্রচারিত হবার পর; ছাত্রলীগ যেভাবে আনন্দ মিছিল করেছে, অন্যেরা কতটা ভয় পেয়েছেন, জানি না, তবে আমি খুব ভয় পেয়েছি।

    ডিপ্রেশন শব্দটাই একদিন অনেক ডিপ্রেশনে ভোগবে..


    একটা মানুষ একটু সুখের আশায় ছুটে বেড়ায় এই শহর থেকে অন্য শহরে। কেউ কেউ আবার দেশ পেরিয়ে ছুটছে অন্য কোন দেশে। তৈরি হয় নতুন ঠিকানা। শুরু হয় নতুন যুদ্ধ। কে যুদ্ধে জয়ী হলো আর কে পরাজয় বরণ করলো তার উপর নির্ভর করে কে কতদিন সুখী হয়ে বাঁচবে। এই শহরের সবচেয়ে প্রাচীন আর ভয়ানক রোগের নাম ডিপ্রেশন। রাতের আঁধারে এই একটা রোগ একে একে সবাইকে আক্রমণ করে। চোখের নিচের কালো দাগগুলো দেখলেই বুঝা সম্ভব মানুষগুলো শেষ কবে রাতের বেলা একটু আরাম আর আয়েশ করে ঘুমিয়েছে ঠিক নেই। ডিপ্রেশন থেকে বেরিয়ে আসার জন্যও প্রয়োজন ছোটখাটো যুদ্ধের। আবার বের হতে না পারলে নিশ্চিত মৃত্যু।

    যুদ্ধ, যুদ্ধ আর যুদ্ধ...

    আগামীর স্রোত


    কোথায় যেন আছে একটি
    সুরঙ্গের পথ সুগভীর!
    ছোট-বড়ো নিশ্বাস উঠে আসছে; তার একদম ভেতরে আছে নদী,
    কয়েকটি নদী; যাদের শব্দ শোনা যায় ঐ শহরে-
    শহরের জন্যে।
    ফেরিওলার ঝুড়ি, একটি ফেরিওলার ঝুড়ি-
    সুন্দর সব পলিশ, ঘ্রাণ আর চকচকে রঙিন চুড়ি।
    অগণিত শিলাবৃষ্টি ঝুপঝুপ ভাঙছে কাষ্ঠ নগরীর হৃদয়,
    মোড়ের ঝালাই দোকানের মত পুরোনো সেসব মানিক
    উত্তপ্ত চটির তলায় রোজ পিষ্ট হয়।
    আমাদের মরে যাবার সময়,
    আকাশের সেসব রঙ অক্ষত থেকে যাবে,
    ধুয়ে পরিষ্কার হয়ে যাবে গতদিনগুলির মত।
    ভনভন করে মাছি উড়বে, আমাদের নিষ্ক্রিয় নাকের ডগায়,

    কোটা সংস্কার ও আমার ভাবনা


    কোটা সংস্কার আন্দোলন বাঙালির প্যান্ট টানাটানি অভ্যাসের বহিঃপ্রকাশ।
    ব্যাখ্যা প্রয়োজন?
    পরিবারে তিনজন সন্তান থাকলেও কিন্তু সবাই ফেভারিট ওয়ান হয় না। হ্যা, আপনার পিতামাতা, দে অ্যাক্ট লাইক দে আর ট্রিটিং ইউ ইক্যুয়ালি, বাট ইউ ন্যো ভেরি ওয়েল দ্যাট দে আর নট।
    পাঁচ মিনিটের শারীরিক আনন্দের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া ব্যতীত হিউম্যান লাইফ কিছুই না। যখন আপনি সাইড ইফেক্ট হিসেবে শরীরে চলে আসচেন, আপনাকে ভালোবাসতে শেখা ছাড়া আসলে কিছুই করার থাকে না মা'র।

    চাকরিতে কোটা সংস্কারের আন্দোলনের সাথে ঢাবি উপাচার্য্যের বাসভবন আক্রমনের সম্পর্ক কি ?


    বাংলাদেশে সরকারী চাকুরীতে ৫৫% কোটা সংরক্ষিত। মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তান , উপজাতি ইত্যাদির জন্যে এই কোটা। এর ফলে বিশাল সংখ্যক সাধারন ছাত্র/ছাত্রী চাকরি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে , সেটা ঠিক। এর জন্যে আন্দোলনও বে আইনি নয়। কিন্তু ----

    দাঙ্গার পর



    যখনই কোথাও রক্ত দেখি,
    মন্দির, মসজিদ অথবা জঙ্গলে
    আমি আকাশের দিকে তাকাই ।

    যখনই কেউ আমার দিকে ছোরা নিয়ে ছুটে আসে
    অথবা বন্দুক তাগ করে
    আমি আকাশের দিকে তাকাই ।

    যখনই কেউ বেসুরো গান গায়
    অথবা কেউ দেশের মাটি বলে চেঁচায়
    আমি আকাশের দিকে তাকাই ।

    আমি কোনও কাজ করিনা
    আমি কোথাও যাইনা
    আকাশের দিকে তাকাই আর
    একদিন সবাই আকাশে তাকানো শিখবে
    এই বিশ্বাস পোক্ত করি ।

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর