নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    There is currently 1 user online.

    • ইউসুফ শেখ

    নতুন যাত্রী

    • সুশান্ত কুমার
    • আলমামুন শাওন
    • সমুদ্র শাঁচি
    • অরুপ কুমার দেবনাথ
    • তাপস ভৌমিক
    • ইউসুফ শেখ
    • আনোয়ার আলী
    • সৌগত চর্বাক
    • সৌগত চার্বাক
    • মোঃ আব্দুল বারিক

    ইহা সহীহ হিন্দুত্ব নহে !


    ভারতে ইদানীং ‘জয় শ্রীরাম’ শব্দটা বেশ শোনা যাচ্ছে। ক্রমেই ধর্মান্ধতা চেপে বসছে ভারতের ঘাড়ে। পাকিস্তানের ক্রমাগত ধর্মীয় সন্ত্রাসে অতিষ্ঠ ভারতবাসীর কাছে হিন্দুত্বের শান্তির বার্তা বিতরণ করছে অারএসএস, শিবসেনা, বিজেপি ও বজরং দল।
    রাস্তাঘাট, খোলামাঠ, পরিবহন প্রভৃতি স্থানে হাঁটতে গেলে মাঝেমধ্যে কানে অাসে ‘জয় শ্রীরাম’ নামক শান্তিবাণী (?), যা ক্রমেই খাচ্ছে ভারতীয়দের মননশীলতা ও সৃজনশীলতা।

    শুভ নববর্ষের অগ্রিম শুভেচ্ছা...


    "সময় আসছে শুভক্ষণ"(13-04-2018)
    তাপস ভৌমিক
    সময় আসছে শুভক্ষণ,নববর্ষের আগমন,
    পান্তা ইলিশ,হালখাতা কোটি হৃদয়ের স্পন্দন
    সূ্ঁর্য্যি মামা উঁকি দিবে নতুন ভোরে নতুন দম,
    পুলকিত এই হৃদয়ে ঘটবে শত কম্পন।

    সময় আসছে শুভক্ষণ,নববর্ষের আগমন,
    নৌকাবাইচ আর পুতুলনাচ বসবে কাল জমাজম
    পেরাব গ্রামে ঘোড়া মেলা মানবে না কাল দিনক্ষণ,
    সার্কাস আর নাগরদোলায় উচ্ছাসিত শিশুমন।

    সময় আসছে শুভক্ষণ,নববর্ষের আগমন,
    ছায়ানটের অবারতা না যায় করা বর্ণন
    শোভা যাত্রার আপন শোভা বয়ে আনুক মঙ্গল,
    গ্লানি মুঁছে হোক না মধুর,প্রতিটি বন্ধন।

    কালের দৈত্য এসে


    আমাদের প্রিয় নতুন স্বভাব জন্ম লয়
    শুণ্যরেখায় বহমান চিন্ময় তরুণ হৃদয়
    আমার খোদা ও ধ্বংসের কোনও ব্যাখ্যা নেই।
    দুর্বল কবুতর পাখা মেলার দায়ে বন্দি যেমন হয়,
    তেমনি নিঃশব্দে ক্ষত হই।
    আমি জানি-
    তোমাদেরও আছে শব্দ ও কারাগার গ্রন্থ,
    তাতে হাতির পায়ের মত বিধ্বংসী পদে হেঁটে যাই
    শুধু মানুষের জন্য।
    হ্যা! আমি জানি-
    আমি কখনও মানুষ ছিলাম না; মানুষের মত,
    একটি পদ্ম ও জলের সম্বন্ধ
    ততটুকু দুরত্বে নির্দম্ভ; এবং বিক্ষত।

    এভাবে ক্ষয়ে-ক্ষয়ে মিলিয়ে যাই
    সন্ধ্যা তারার মত মধ্যরাতে, একদিন।

    কোটা আন্দোলন সমর্থনে প্রধানমন্ত্রীর উষ্মা এবং জাফর ইকবালের চামচামী।


    কোটা সংস্কার আন্দোলন ছাত্ররা করেছে নিজস্ব তাড়না থেকে, সেটাকে মিস্টার ইকবাল যথেষ্ট কম গুরুত্বপূর্ণ আন্দোলন বলে আখ্যা দিলেন। যার জন্য ঢাকার রাস্তাঘাট বন্ধ করা নিতান্তই অযৌক্তিক তার কাছে। কিন্তু এই যে গতমার্চেই ৭ই মার্চের ভাষণ উদ্‌যাপন, উন্নয়নশীল দেশের ভুয়া স্ট্যাটাস পাবার উদ্‌যাপনকে ঘিরে সমস্ত ঢাকা শহর যখন আওয়ামী লীগই বন্ধ করে দেয় কই তখন তো দেখলাম কোনো গার্মেন্টস কর্মী, রিক্সাচালক কিংবা এম্বুলেন্সের রোগী নিয়ে কথা বলতে? কখন বললেন? যখন দেখলেন প্রধানমন্ত্রী সংসদে দাঁড়িয়ে একটা ঝাড়ি তাকে দিয়েছে। প্রায় প্রতি সপ্তাতেই ঢাকার কোনো না কোনো এলাকায় আওয়ামীলীগের কোনো না কোনো সমাবেশ চলতেই থাকে, এইতো গেলো ৩১মার্চ সম্পূর্ন মিরপুর বন্ধ করে দিয়ে তারা দূর্নীতি বিরোধী সমাবেশ করলো, তখন তো মিস্টার ইকবাল লিখলো না আহারে, একটা ছেলেমেয়ে যদি পরীক্ষা দিতে যেতে দেরি হয়?

    ভগবানের দেশে অাবারো শিশু ধর্ষণ ও হত্যা : ভগবান তখন অাল্লাহকে দোষারোপ করছিলেন!


    সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠেছি। ফেসবুকে চোখ বুলিয়েছি। চোখের পাপড়ি ভিজে গেল, খবরটি পড়ার পর। বাংলাদেশে শিশু পূজাকে ধর্ষণ করা হয়েছিল। ধর্ষকরা ছিল মুসলমান। ভারতে অাট বছর বয়সী অাসিফাকে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে। ধর্ষকরা হিন্দু।
    হিন্দু ধর্ষকদের মুক্তির দাবিতে মিছিল করেছে বহু হিন্দু। কারণ ভারত হচ্ছে ভগবানের দেশ, যেমন বাংলাদেশ হচ্ছে অাল্লাহর দেশ। অাল্লাহ এবং ভগবানরা মিলেমিশে নিজেদের জন্য অালাদা অালাদা দেশ ভাগ করে নিয়েছে।
    অাল্লাহর দেশে হিন্দুদেরকে ধর্ষণ করা হয় অাল্লাহর নামে, বাকি মুসলিমরা নিশ্চুপ। ভগবানের দেশে মুসলিমদেরকে ধর্ষণ করা হয় ভগবানের নামে, বাকি হিন্দুরা চুপ।

    অঙ্গিকার


    অঙ্গিকার
    তাপস ভৌমিক
    " অমানবীয় অন্যায়ের গৌরব,
    মাথা পেতে নেবে বাঙ্গালী জাতি
    যত সব হতাশা যত ব্যাধি,
    আর কতকাল চলবে হাতাহাতি।
    শেষাংশে জ্বলবে মহারৌরবে,
    একি চলছে যুদ্ধ পান্ডব-কৌরবে।
    যুদ্ধ -যুদ্ধ-যুদ্ধ এ এক ভয়ানক অরণ্য
    এই তাদের অনাবিল আনন্দ।

    ১৪ গুষ্টির উপাধির পদবি এবং বৈষম্য!


    দেশের পরিচয়ে আমাদের সকলের পরিচয় হোক। থাকবে না বনেদি কিংবা কুলীনপনার দম্ভ, থাকবে না অন্ত্যজদের কুঁকড়ে যাওয়া, ন্যূব্জ হওয়া। মানুষের পরিচয় শুধুই মানুষ। ভেবে দেখুন সকলেরই ধর্মহীন, জাতপাতহীন একটা পদবি হলে মন্দ হবে

    এই দেশে এখন একশ্রেণীর বেজন্মা-মেধাবীর সংখ্যা বাড়ছে!



    যার ভিতরে দেশপ্রেম বিদ্যাবুদ্ধি, বিবেক, আত্মসংযম ও মনুষ্যত্ব আছে তাকে মেধাবী বলে। কিন্তু এই দেশের চিরস্থায়ী-বেজন্মা ও একাত্তরের ঘাতক-দালাল জামায়াত-শিবিরের কী বা কোন মেধা আছে? এই বেজন্মারাও এখন দেশের “মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের সন্তানদের জন্য সংরক্ষিত কোটা” বাতিলের দাবিতে একশ্রেণীর সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের সঙ্গে আন্দোলনে নেমেছে! আর এই বেজন্মারাও এখন সুযোগ বুঝে বিসিএস-ক্যাডারসহ অন্যান্য সরকারি-চাকরিতে ঢুকতে চাচ্ছে! স্বাধীনদেশে একশ্রেণীর সাধারণ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে একাত্তরের চিহ্নিত যুদ্ধাপরাধী বেজন্মা জামায়াত-শিবিরও তাদের পূর্বপরিকল্পিত ষড়যন্ত্র বাস্তবায়নের জন্য এখন “মুক্তিযোদ্ধা ও তাঁদের সন্তানদের জন্য সংরক্ষিত কোটা” বাতিলের দাবিতে আন্দোলনে শরীক হয়েছে, এবং এজন্য তারা নানাপ্রকার নাশকতাও চালিয়েছে। এদেশের যেকোনো সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের শান্তিপূর্ণভাবে আন্দোলন করার অধিকার রয়েছে। কিন্তু বেজন্মা জামায়াত-শিবিরকে এই অধিকার কে দিয়েছে?

    পৃষ্ঠাসমূহ

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর