নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 5 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • নুর নবী দুলাল
  • রাজর্ষি ব্যনার্জী
  • আসিফ মহিউদ্দীন
  • কান্ডারী হুশিয়ার
  • সাইয়িদ রফিকুল হক

নতুন যাত্রী

  • মিঠুন সিকদার শুভম
  • এম এম এইচ ভূঁইয়া
  • খাঁচা বন্দি পাখি
  • প্রসেনজিৎ কোনার
  • পৃথিবীর নাগরিক
  • এস এম এইচ রহমান
  • শুভম সরকার
  • আব্রাহাম তামিম
  • মোঃ মনজুরুল ইসলাম
  • এলিজা আকবর

আপনি এখানে

অ্যাডভোকেট শাহানূর ইসলাম সৈকত এর ব্লগ

চিকিৎসার মাধ্যমে কি একজন সমকামী ব্যক্তিকে বিষমকামী ব্যক্তিতে পরিবর্তন করা যায়?


দেশের উত্তরাঞ্চলের বিভাগীয় শহর রংপুরের সদ্য কৈশোর পেরিয়ে আসা ১৮ বছর বয়সী সাদমান ইমাম দেশের সর্বোচ্চ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া হাসি খুশিতে ভড়া এক প্রাণবন্ত তরুন। শারীরিকভাবে পুরুষ মানুষের বৈশিষ্ট্য বহন করলেও মানসিকভাবে যে কিনা মেয়ে মানুষকে ধারণ করে। শিশুকাল থেকে তাঁর ছেলেদের চেয়ে মেয়েদের সাথে বেশি মিশতে ইচ্ছে করে। তাঁর প্রতিবেশি ছেলে বন্ধুরা যখন বাড়ির বাহিরে ছুটাছুটি খেলাধুলায় মত্ত্ব, তখন সে তাঁর প্রতিবেশি মেয়েশিশুদের সাথে তথাকথিত পুতুলের বিয়ে খেলা নিয়ে ব্যস্ত। তাঁর কেন জানি মায়ের মত করে সর্বদা বউ সাঁজতে ইচ্ছে করে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাঠ চুকিয়ে উচ্চবিদ্যালয়ে পড়াকালীন সময়ে যখন তাঁর ছেলে বন্ধুরা ম

ভিন্ন মতাদর্শমুলক লিখার প্রতিবাদ যুক্তি নির্ভর লিখনি দিয়েই হোক, হত্যার হুমকি দিয়ে নয়!


স্রোতের বিপরীতে আর কোন লিখা লিখব না বলে প্রতিজ্ঞা করতে করতে প্রতিদিন ঘুমিয়ে পড়ি। কিন্তু পারি না সে প্রতিজ্ঞা রক্ষা করতে। সকালে ঘুম থেকে উঠেই সে প্রতিজ্ঞা ভুলে যাই। যখন চোখের সামনে স্রোতের বিপরীতের কোন না কোন বিষয় ভেসে উঠে। ফলে সকল প্রতিজ্ঞা ভঙ্গ করে আবারো সে বিষয়ে লিখতে চেষ্টা করি। ফেসবুক অথবা ব্লগ পোষ্টের মাধ্যমে তা আবার জন সম্মূখে প্রকাশ করি। আর দুরু দুরু বুকে অবলোকন করতে থাকি পাঠকের প্রতিক্রিয়া। অধিকাংশ ক্ষেত্রে পাঠকের প্রতিক্রিয়া দেখে অবাক হয়ে যাই। আসলে তারা পাঠক নাকি কোন মৌলবাদী প্রতিক্রিয়াশীল জঙ্গি সন্ত্রাসী গোষ্ঠীর সদস্য?

সমকামী সাজ্জাদের মৃর্ত্যুর জন্য দায়ী কে?


সাজ্জাদ হোসেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চলের এক বিভাগীয় শহরের সদ্য কলেজ পাশ করা এক সদা হাস্যময়ী সমকামী তরুন, যে কিনা কিছুদিন আগে পরিবারের চাপে বিয়ে করে বাসর রাতেই আত্বহত্যা করেছে। শুধু সাজ্জাদ নয় এরকম অহরহ সমকামী ছেলে মেয়ে পরিবার, সমাজ আর রাষ্ট্রের চাপে সমকামী হওয়া সত্ত্বেও বিপরীত লিঙ্গের ছেলে মেয়েকে বিবাহ করতে বাধ্য হচ্ছে। যাদের মধ্যে অনেকেই আত্বহত্যা করে নিজেদের মুক্ত করছে, আর যারা পারছে না তারা শত কষ্টে ইচ্ছের বিরুদ্ধে বিপরীত লিঙ্গের ছেলে মেয়ের সাথে দিনাতিপাত করতে বাধ্য হচ্ছে।

জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলে সমকামীদের মৃর্ত্যুদন্ডের পক্ষে বাংলাদেশ ভোট দেয়ায় জাস্টিসমেকার্স বাংলাদেশ উদ্বিগ্ন!


গত ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১৭ খ্রীষ্টাব্দে জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলে গৃহিত সমকামীদের মৃর্ত্যুদন্ড বিলোপ সংক্রান্ত প্রস্তাবের বিপক্ষে অর্থাৎ সমকামিদের মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার পক্ষে বাংলাদেশ ভোট দেয়ায় জাস্টিসমেকার্স বাংলাদেশ উদ্বিগ্ন!

আনন্দ উৎসব থেকে সমকামী যুবক গ্রেফতার: মানবাধিকারে ওপর চপেটাঘাত!


গত ১৮ মে ২০১৭ ইং তারিখ দিবাগত রাতে ঢাকার কেরানীগঞ্জের একটি কমিউনিটি সেণ্টারে অনুষ্ঠিত আনন্দ সমাবেশ/উৎসব থেকে ২৭ জন সমকামী যুবক গ্রেফতারের ঘটনায় যৌন প্রবৃত্তিগত সংখ্যালঘু সমকামী সম্প্রদায় আজ বড় বেশী উদ্বিগ্ন। যদিও কৌশলে আইনশৃংখলা বাহিনী তাদের দণ্ডবিধির ৩৭৭ নং ধারায় গ্রেফতার না দেখিয়ে মাদক দ্রব্য রাখার অপরাধে গ্রেফতার দেখিয়েছে, যেন কেউ প্রশ্ন করলে তাদের সমকামীতার অপরাধে নয়, আর দশটি নিয়মিত অপরাধে গ্রেফতার করেছে বলে বিভিন্ন মানবাধিকার সংঠন এবং উন্নয়ন সহযোগী প্রতিষ্ঠান ও দেশসমূহকে ঘোড়াবুঝ দিতে পারে!

সমকামী ব্যক্তির অধিকার প্রতিষ্ঠায় যোগযাকার্টা প্রিন্সিপলস!


জাতিসংঘ মানবাধিকার ঘোষণাপত্র ও অন্যান্য আন্তর্জাতিক কভিন্যান্টের সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে সকল রাষ্ট্রের শুধুমাত্র যৌন প্রবৃত্তি ও লিঙ্গ পরিচয়ের কারণে বৈষম্যের হাত থেকে সকল নাগরিকের সুরক্ষা প্রদানের বাধ্যবাধকতা থাকলেও আন্তর্জাতিক মানবাধিকার ব্যবস্থার মাধ্যমে যৌন প্রবৃত্তি ও লিঙ্গ পরিচয়ের কারণে মানবাধিকার লংঘনের প্রতিকার সাধনে অসামঞ্জস্য ও অপর্যাপ্ততা লক্ষ্য করা যায়।

সমকামী ব্যক্তির অধিকার প্রতিষ্ঠায় যোগযাকার্টা প্রিন্সিপলস


শুধুমাত্র যৌন প্রবৃত্তি ও লিঙ্গ পরিচয়ের কারণে মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা সারা বিশ্বে আজ গুরুত্বর উদ্বেগের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। যৌন প্রবৃত্তি ও লিঙ্গ পরিচয়ের কারণে বিচার বহির্ভূত হত্যাকাণ্ড, নির্যাতন ও দুর্ব্যবহার, যৌন নির্যাতন ও ধর্ষন, গোপনীয়তায় হস্তক্ষেপ, স্বেচ্ছাচারী আটক, চাকুরী ও শিক্ষাক্ষেত্রে বৈষম্যসহ অন্যান্য মানবাধিকার উপভোগে গুরুত্বর বৈষম্য এখন নৈমত্তিক ব্যপার। এ সকল মানবাধিকার লংঘন, ঘৃনা, বৈষম্য ও বর্জন প্রায়শ জাতি, বয়স, ধর্ম, অক্ষমতা, বা অর্থনৈতিক, সামাজিক বা অন্যান্য অবস্থা অনুঘটক হিসেবে কাজ করে। বিশ্বের অনেক রাষ্ট্র ও সমাজ প্রথা, আইন ও জুলুমের দ্বারা ব্যক্তির উপর লিঙ্গ ও যৌন প্রবৃত্

দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারা: সংবিধানের মৌলিক চেতনার পরিপন্থী!



আমাদের দেশের সর্বোচ্চ আইন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সংবিধান, যা ত্রিশ লক্ষ শহীদের রক্ত আর পাঁচ লক্ষ মা বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে একটি স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে ১৯৭২ সালের ১৬ ডিসেম্বর থেকে কার্যকর হয়েছে। সংবিধান আমাদের কাছে মহান এবং অনেক পবিত্র একটি আইন গ্রন্থ,যা লংঘন করা জাতির অস্তিত্বকে অস্বীকার করার সমতুল্য একটি অপরাধ।

এই বাংলাদেশ-ই-কি আমরা চেয়েছিলাম!


স্বাধীন দেশের নাগরিক হয়েও আজ আমরা যেন পরাধিনতার শিকলে আবদ্ধ। এখনো প্রতিনিয়ত ভুলন্ঠিত হচ্ছে মানবতা। প্রতিটি সেক্টরে চলছে ঘুষ, দুর্নীতি, অন্যায়, অবিচার, শোষন, বৈষম্য আর নির্যাতন। রাষ্ট্রীয় বাহিনীর হাতে গুম, খুন আর নির্যাতন যেন নিত্য নৈমত্যিক ব্যপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিগত বছরগুলোর খতিয়ান দেখলে একথা নি:সন্দেহে বলা যায় যে দিনে দিনে দেশের আইনশৃংখলা আর মানবাধিকার পরিস্থিতির শুধু অবনতিই হয়নি চরম আকার ধারন করেছে।

পৃষ্ঠাসমূহ

বোর্ডিং কার্ড

অ্যাডভোকেট শাহা...
অ্যাডভোকেট শাহানূর ইসলাম সৈকত এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 6 দিন ago
Joined: রবিবার, এপ্রিল 24, 2016 - 11:00পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর