নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 0 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

নতুন যাত্রী

  • সুশান্ত কুমার
  • আলমামুন শাওন
  • সমুদ্র শাঁচি
  • অরুপ কুমার দেবনাথ
  • তাপস ভৌমিক
  • ইউসুফ শেখ
  • আনোয়ার আলী
  • সৌগত চর্বাক
  • সৌগত চার্বাক
  • মোঃ আব্দুল বারিক

আপনি এখানে

ব্লগসমূহ

আমেরিকা এবং গং সিরিয়াতে কী উদ্ধার করলো মিসাইল মেরে?



মিসাইল ইন্টারসেপ্ট করা নিয়ে অনেক কথা চলছে। বর্তমান বিশ্বে আমেরিকার চেয়ে রাশিয়ান মিসাইল ডিফেন্স সিস্টেমগুলা বেশি কার্যকর ও আধুনিক। আবার এসব সিস্টেম খুবই ব্যয়বহুল। আমার ধারণা, রাশিয়া কিছু মিসাইল ইন্টারসেপ্ট করেছিল, আর বাকীগুলো এমনিতেই করেনি। মিসাইল ইন্টারসেপ্ট করতেও মিসাইল লাগে, যার একেকট্র মূল্য কোটিকোটি টাকা। শখানেক মিসাইলে যে স্থাপনা ধ্বংস হব, তা ঠেকানোর চেয়ে ওগুলো ধ্বংস হতে দিয়ে আবার গড়ে ফেলা কম খরচের ব্যাপার। পরাশক্তিরা এই গ্যাস হামলার হুমকি পাল্টা হুমকির ও মিসাইল স্ট্রাইক পরবর্তী হিসেব নিকেশে নো উইন সিচুয়েশনে আছে। পশ্চিমারা মুখ রক্ষা করলো কিছু উধার না করেই, আর রাশিয়া মিসাইল হামলা প্রতিহত করবার জন্য সেভাবে কিছু না করেই বাগাড়ম্বর করলো। তাদেরও তেমন লাভ হয়নি, ক্ষতিও না। আসাদ সরকারের সর্বাত্মক বিজয়ের চেয়েও সিরিয়াতে তাদের অবস্থান বেশি জরুরী। সেটা তারা নিশ্চিত করবেই।

ভিন্ন আকাশ


তুমি আর আমি এখনো চলছি আপন পথে,
এ যেন রেলের দুটি লোহার লাইন।
আজন্ম পাশাপাশি চলবে,
শুধু মিলিত হবেনা।
এখনো দেখা হয় পথে,
সংগোপনে আকড়ে ধরি বুকে।
তোমার হৃদ কম্পন অনুভব করি,
তা আজো আমার জন্য শিহরিত হয়।
তুমি কি টের পাও আমার হৃদ কম্পন??
নাকি কাল্পনিক সে আলিঙ্গনই টের পাওনা??
হয়তো পাও, হয়তো পাওনা
তাতে কিই বা এসে যায়?
যে পথ হারিয়ে গেছে,
সময়, স্থান, কালের বৈপরীত্যে
যা নিয়ে গেছে দূর বহুদূর।
থাক না সে দূরত্ব
না হয়, চন্দ্রমুখীর মত বেসে গেলাম।
ধর্মাধর্ম, সমাজের দোহায়ে।
ভালবাসাটা না হয় দিনের আলোয়

ছেলে শিশুর সাথে যৌন সম্পর্ক কি ধর্ষণ?


গত (১) ৩১ শে মার্চ ২০১৮ ইং তারিখে জনপ্রিয় অনলাইন পত্রিকা পূর্ব-পশ্চিমবিডি তে প্রকাশিত সংবাদ “সিলেটের জকিগঞ্জে ছাত্রকে বলাৎকার করে ভিডিও, বখাটে গ্রেফতার”, (২) ২০ মার্চ ২০১৮ ইং তারিখে বাংলার জমিন পত্রিকায় প্রকাশিত “নোয়াখালী জেলার কোম্পানীগঞ্জে মাদ্‌রাসা ছাত্রকে বলাৎকার”, (৩) ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ ইং তারিখে পূর্ব-পশ্চিমবিডিতে প্রকাশিত “মৌলভীবাজার জেলার কুলাউড়ায় ছাত্র বলাৎকার সুপারের অব্যাহতি”, (৪) ১১ জানুয়ারী ২০১৮ ইং তারিখে এনটিভিবিডি তে প্রকাশিত “সাভারে মাদ্রাসাকক্ষে শিশুকে ‘বলাৎকার’, শিক্ষক আটক” , (৫) ১২ ডিসেম্বর ২০১৭ ইং তারিখে দৈনিক যুগান্তর পত্রিকার অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত “নাটোরের বড়াইগ্রাম

খোলা জায়গায় প্রস্রাব দমনের নামে আরবি ভাষা প্রতিষ্ঠার পায়তারা


বাংলার জন্য যতই বাঙালির রক্ত ঝরুক, রক্তের উপর আমরা দাড়িয়ে প্রস্রাব করতে পারি এটাও হয়তো আমাদের রক্তে মেশা৷ একেতো বাঙালির রক্তে বহু জাতির রক্ত, তার উপর নিজের মনের হীনতা৷ আমরা গর্ব করে বিশ্বকে বলতে পারি যে ভাষার জন্য এত রক্ত কখনো কোন জাতি দেয়নি কিন্তু আমাদের দেখে বিশ্ব জেনে নেয়, শহীদের সাথে আমরা কতটা প্রতারণা করেছি৷ মীর জাফর চরিত্রটা বাঙালির ছিলো এখনো আছে৷

গাওয়াল (উপন্যাস: পর্ব- সতেরো)



‘নীলুদা, নীলুদা....।’
হেমন্তের বিকেল। দুপুরের খাবার খেতে আজ বেশ দেরি হয়ে গেছে নীলুর। খেয়ে থালা-বাসন ধুয়ে সবেমাত্র ঘরে এসে ভাবলো বিছানায় একটু গড়িয়ে নেবে, এমন সময়ই বাইরে থেকে ডাকলো শোভন।

‘তুই কহন আসলি শোভ....।’ বলতে বলতে দরজার কাছে এসে অবাক হয়ে তাকিয়ে রইলো নীলু, কথা শেষ করতে পারলো না।
তার হাঁ করা মুখের দিকে তাকিয়ে শোভন বললো, ‘একি তুমি এমন হাঁ করে তাকিয়ে আছো কেন! এরা আমাদের মতোই রক্ত মাংসের মানুষ। সবাই আমার বন্ধু। এসো পরিচয় করিয়ে দিই।’

অতীব সম্পদশালী দেশ ভেনেজুয়েলার আজকের শোচনীয় অবস্থা এবং প্রাসঙ্গিক আলোচনা



যে দেশ গত শতকের ইতিহাসের অর্ধেকের বেশি সময় পৃথিবীর তেলের সবচেয়ে বড় রপ্তানিকারক ছিল, তাদের দেশের মুদ্রার অবস্থা এখন কেমন? কেন তাদের দেশে এখন প্রায় সবকিছুর জন্য হাহাকার? বাস্তব অবস্থা কেমন একটু দেখি। ধরেন, আপনি কদুর তেল আমদানি করবেন ওই দেশে। সরকারী রেটে যদি ১০০ বলিভার ১ ডলার হয়, সেটা কেবল সরকারী রেটই। বাইরে ১ ডলারের দাম এরচেয়ে শতগুণ বেশি। তাহলে আপনাকে কালোবাজারে অনেকগুণ বেশি দাম দিয়ে ওই কদুর তেল আনতে হবে মাথা ঠান্ডা রাখার জন্য। এনে ওইটা বিক্রি করতে গেলে প্রকাশ্যে সরকার নির্ধারিত দামের চেয়ে বেশিতে বিক্রি করতে পারবেন না। ধরেন আপনার আনতে কালোবাজারে খরচ পড়লো ১০০০ বলিভার। কিন্তু সরকার বললো ১০০ বলিভারের বেশিতে বিক্রি করা যাবে না। আপনি কি ১০ গুণ কমদামে বিক্রি করবেন? শুরু হবে নৈরাজ্য। আর প্রতিটা জিনিসের বেলাতেই এই অবস্থা। কারণ, সরকার দেশের বেসরকারী খাতকে এমনভাবে ধ্বংস করে ফেলছে যে হতাশা বাদে এমন কোনো জিনিস প্রায় নাই-ই যা দেশে উৎপাদিত হয়। কাগজে কলমে ওইদেশের মানুষের আয় এখনো প্রায় দশ হাজার ডলার। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ এখন অপুষ্টির শিকার।

বিশ্ববিদ্যালয় ও রাষ্ট্রের সম্পর্ক


শিক্ষা কী? বিশ্ববিদ্যালয়ের কাজ কী? জ্ঞান কাকে বলে এসব আর এযুগে এদেশে কেউ ভাবেনা। কোনদিন ভেবেছিলো এমন ইতিহাসও আমি দেখিনি। উপমহাদেশের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয়গুলো তথা কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, মাদ্রাজ বিশ্ববিদ্যালয় এবং মুম্বাই বিশ্ববিদ্যালয় তৈরী হয়েছিলো ঔপনিবেশিক ব্রিটিশ সরকারের ভারত প্রশাসনে কেরানি সাপ্লাই দেওয়ার জন্য। আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তৈরী হয়েছিল কলকাতার হিন্দুদের সাথে পাল্লা দিয়ে বাংলায় একটা "উচ্চশিক্ষিত মুসলিম মধ্যবিত্ত" শ্রেণী তৈরীর মানসে।মূল উদ্দেশ্য ওই চাকরিবাকরি। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবীদাররা এমন কথাই বলেছিলেন ব্রিটিশ প্রভুদের দরবারে। এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম উপাচার্য স্যার ফিলিপ হার্টগের উদ্বোধনী ভাষণে এই উপরোক্ত কথারই অনুরণন পাচ্ছি।

সংবাদ


অপরাহ্নের রৌদ্রের ঝলক
মহামতি রামমোহনের সভ্যতা বিনাশী কীর্তিনাশা-
পাশেই সিগ্রেটে মগ্ন যুবক
ধর্মযাজক হেন ধ্যান তার সিগ্রেটে

বৈশাখি তাণ্ডবনৃত্য চৌদিকে-
পলকে কালি রৌদ্রের ঝলকে
বৃক্ষের মস্তডাল, ঘাসের গালিচা, একটি দু'টি আর বক পাখির ঝাঁক উদ্ভট ছুটছে
সিগ্রেটে মগ্ন যুবক

খেজুর রস ফোঁটায় ফোটায় বৃষ্টি!
পথিকের গায়ে এ যেন বুলেট বর্ষণ
ছুটছে পথিক-
অলস ব্যাচলরের মতন মশার কামড় ভেবে যুবক-
নড়েচড়ে বসল
ধর্মযাজক হেন ধ্যান তার সিগ্রেটে

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের কী দোষ ?


বিশ্বজুড়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেমন ফেইসবুক , টুইটার , ইউটিউব বহুল ব্যাবহারিত। এর জনপ্রিয়তা বাড়ছে। ব্যবহারকারীরা খুব সহজে এ সকল যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহার করে মনের ভাব আদান -প্রদান করতে পারে। এ বাণিজ্যিক দুনিয়ায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলো ব্যবসা বিস্তার ও উন্নয়নে অপরিসীম অবদান রাখছে। বলার অপেক্ষা রাখেনা , সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম রাজনীতি , অর্থনীতি , ধর্ম ও সংকৃতির অপব্যাবহার রোধে বলিষ্ঠ ভূমিকা রাখছে।

পৃষ্ঠাসমূহ

কু ঝিক ঝিক

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর