নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 10 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • কাঠমোল্লা
  • অর্পিতা রায়চৌধুরী
  • পৃথু স্যন্যাল
  • নুর নবী দুলাল
  • পার্থিব
  • আমি অথবা অন্য কেউ
  • আরণ্যক রাখাল
  • ফারুক
  • ইকারাস
  • আবেদীন পুশকিন

নতুন যাত্রী

  • শিরিন আবু সাঈদ
  • রাজিব দাশ
  • রবিঊল
  • কৌতুহলি
  • সামীর এস
  • আতিক ইভ
  • সোহাগ
  • রাতুল শাহ
  • অর্ধ
  • বেলায়েত হোসাইন

আপনি এখানে

ব্লগসমূহ

রাষ্ট্র ও ধর্ম : পরিপূরক নাকি ক্ষতিকারক?


আমাদের রাষ্ট্রভাষা বাংলা এবং রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম। একটা অর্জনের জন্য আমাদের পূর্ব প্রজন্মের লোকেরা জীবন দিয়েছেন এবং অন্যটা পাওয়ার ফলে আমাদের প্রাণের অপচয় হচ্ছে। দ্বিতীয়টা নিয়েই লিখবো।

বাংলাদেশের আগামীর ভাবনা


নব্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড জে ট্রাম্প দায়িত্ব গ্রহণের প্রথম দিনই যেভাবে নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি পালনে উদ্যোগী হয়েছেন তাতে উদ্বেগ বাড়ছে যুক্তরাষ্ট্রসহ সারা বিশ্বে, তালিকায় আছে বাংলাদেশও। অভিবাসন, বাণিজ্য, জলবায়ু পরিবর্তন ও নিরাপত্তা নিয়ে ট্রাম্পের নতুন মার্কিন প্রশাসনের পদক্ষেপগুলো এখন মনোযোগ দিয়ে পর্যবেক্ষণ করতে হবে বাংলাদেশকে। ইতোপূর্বে ঢাকা-ওয়াশিংটন সম্পর্কের বর্তমান ধারা অব্যাহত রেখে তা এগিয়ে নিতে গত নভেম্বরের মাঝামাঝি সরকারের দায়িত্বশীল এক কর্মকর্তা মার্কিন প্রশাসন ও রাজনৈতিক মহলে যোগাযোগ করেছেন বলে জানা গেছে। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে পরিস্থিতি অনুযায়ী সম্পর্ক এগিয়ে নিতে সময়োপয

নারী বৈষম্য


নারী মুক্তির প্রধান অন্তরায় নারী বৈষম্য। নারী বৈষম্য মানে মানদন্ডে পুরুষ এবং নারীর অসম মর্যাদা, সম্মান বা সামাজিক অবস্থান। তা হতে পারে দৈহিক গঠন, বুদ্ধিমত্তার মুল্যায়ন, কর্মক্ষেত্র, নিজের মত প্রকাশের ক্ষেত্রে। এমন কি নিজের পোষাক নির্বাচনের ক্ষেত্রেও। বাংলাদেশের নারীরা উল্লেখিত প্রতিটি ক্ষেত্রেই বৈষম্যের শিকার। বৈষম্যের জাঁতাকলে পিষ্ট হয়ে এখন তারা এটাকেই স্বাভাবিক প্রক্রিয়া হিসেবেই মেনে নিয়ে নিজস্বতাকে হারিয়ে ফেলেছে। হঠাৎ করেই কিন্তু এ অবস্থার সৃষ্টি হয়নি। শত শত বছরের চলমান প্রক্রিয়ায় সুক্ষ্মভাবে তাদের মস্তিস্কে প্রোথিত করা হয়েছে-নারীর জন্মই হয়েছে পুরুষের সেবা করার জন্য। বছর বছর সন্তান জন্ম

ওরা সাহায্যের জন্যে আল্লাহকে ডাকছে, কিন্তু আল্লাহই ...


বাংলাদেশের নারীরা সৌদিতে গৃহকর্মি হিসাবে কাজ করতে গিয়ে, সৌদি পুরুষদের ধর্ষনের শিকার হয়ে , তাদের নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে আল্লাহর কাছে ফরিয়াদ করছে। কিন্তু হতভাগীরা জানে না , সেই আল্লাহই তাদের মত গৃহকর্মিকে ধর্ষন করতে বলেছে। বিষয়টা শোনার সাথে সাথেই অনেকেই চমকে উঠতে পারে , কিন্তু না , চমকানোর কোন কারন নেই। বিষয়টা সবিস্তারে আগে জানুন , তারপর চমকে উঠুন।

“আরজ আলী মাতুব্বর দার্শনিক নন”,আপনি কি দার্শনিক? - ২


প্রথম পর্বের ব্লগটি এখানে

১।
আরজ আলী মাতুব্বর কিম্বা সরদার ফজলুল করিম কে “অ-দার্শনিক” প্রমান করবার জঙ্গে যারা হাজির তাদের যুক্তি গুলো কি? দেখুন তাদের যুক্তিগুলো কিরকমের “অকাট্য” !

কোরআনের উপর প্রশ্রাব ও আসাদ নুরের উগ্রতা!


বেশ কিছু দিন ধরে ফেসবুক সহ বিভিন্ন অনলাইন মাধ্যমে আসাদ নুর নামের এক নাস্তিক কে নিয়ে চলছে সমালোচনা। বাংলাদেশের কয়েকটি অনলাইন ও জাতীয় পত্রিকায় ঠাই পেয়েছে আসাদ নুরের নিউজ! এবং আসাদ নুরকে ধরিয়ে দিতে পারলে দুই লাখ টাকা দিবে এমন একটি ভিডিও দেখে আশ্চর্য হয়েছি, আবার রাষ্ট্র প্রভুদের এক আন্ডা বাচ্চাও নাকি তার ফাঁসি চেয়েছে। সার্কাস মার্কা দেশ! নতুন করে কিছু বলার নেই....

যে দিকেই যাই আসাদ নুরকে নিয়ে আলোচনা-সমালোচনা। কেউ তার সাহসীকতা ও উগ্রতাকে প্রশ্রয় দিেচ্ছ এবং আরেক পক্ষ গালি দিয়ে আসাদ নুরের চৌদ্দগোষ্ঠি উদ্ধার করছে।

হিন্দু ধর্মের ইতি বৃত্ত, পর্ব ০৪


‘অহল্যা, দ্রৌপদী, কুন্তি, তারা, মন্দোদরী তথা।
পঞ্চ কন্যাং স্মরেন্নিত্যং মহাপাতক নাশনম্ ।।’

অর্থাৎ অহল্যা, দ্রৌপদী, কুন্তি, তারা ও মন্দোদরী এই পঞ্চ কন্যার নিত্য স্মরণে মহাপাপ নাশ হয়। আমরা এই পবিত্র পাঁচ কন্যা থেকে শুধু দ্রৌপদীতে আলোচনা সীমিত রাখবো।

মহাভারতের কেন্দ্রীয় ও বহুল আলোচিত চরিত্র দ্রৌপদী সাধারন কন্যা নন। সাধারন নারীর মতো তাঁর জন্মও হয়নি। তিনি অযোনিসম্ভবা। যজ্ঞবেদী থেকে তাঁর জন্ম। তাই তিনি জন্মাবধি পবিত্র। জরায়ুর অপবিত্রতা তাকে স্পর্শ করেনি। এই হল দ্রৌপদীর প্রাথমিক পরিচয়।

বইকথন: ২০১৬ তে আমার পড়া সেরা বইগুলো


২০১৬ তে খুব বেশি বই পড়িনি। এবছরেও পড়তে পারবো খুব বেশি, এমনটা মনে হচ্ছে না। তবুও কিছু অসাধারণ বই এসেছিল হাতে। পড়েছি। আলোকিত হয়েছি। খুলে দিয়েছে তারা মনের অনেক রুদ্ধদুয়ার। আলো ফেলেছে হৃদয়ের অচেনা কোন কোনে।
আমারএই পোস্ট, আমার সবচেয়ে বেশি ভাল লাগা পাঁচটা বই নিয়ে। যে-বইগুলো নিয়ে লিখবো বলে ঠিক করেছি- আমার উচিৎ ছিল, তাদের প্রত্যেককে নিয়ে পূর্নাঙ্গ একটা করে রিভিউ লেখা। মুগ্ধতা প্রকাশ করা। কিন্তু পারিনি। আলস্য এই অপারগতার কারণ- এটা বলা মিথ্যে হবে। বোধকরি কারণটা আমার অক্ষমতা। বইগুলো এতোটাই আবিশ্ট করে রেখেছিল যে, সেমুহূর্তে কিছু লিখলে তা হত বইগুলোর নির্জলা প্রশংসা। রিভিউ নয়। কিছুসময় চিন্তা করে, ভাবনাগুলো গুছিয়ে নিয়ে, হৃষ্টশান্ত মনে না লিখলে- "রি-ভিউ" শব্দটার প্রতি, টার্মটার প্রতি সুবিচার করা হয় না ঠিক।

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ নিয়মিত রাজাকারদের গু খাচ্ছে


মার্কিন-যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক একটি মানবাধিকারসংস্থার নাম হচ্ছে: হিউম্যান রাইটস ওয়াচ(এইচআরডব্লিও)। আর নামেই এরা মানবাধিকারসংস্থা! আসলে, এগুলো মানবতাবিরোধী আর মানবাধিকার বিনষ্টকারীপ্রতিষ্ঠান। বলছি, ২০১০ সালে যখন স্বাধীনবাংলাদেশে একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকার্যক্রম শুরু হয় তখন এই হিউম্যান রাইটস ওয়াচ আমাদের দেশের ‘আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনাল’ নিয়ে নানারকম অবান্তর ও শয়তানী প্রশ্নের অবতারণা করেছিলো। শুধু এরা নয় সেই সময় ‘অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল’, ‘ডেমোক্রেসি ওয়াচ’ ইত্যাদিও বিচারকাজে বাধা দেওয়ার জন্যই একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসি বন্ধ করার জন্য তারা নানাদেশে নানাভাবে জোর-লবিং শুরু করে দেয়। আবার মাঝে-মাঝে তারা প্রশ্নও তুলেছে: বাংলাদেশে শুরু হওয়া একাত্তরের যুদ্ধাপরাধীদের বিচারকার্যক্রম নাকি আন্তর্জাতিক-মানদণ্ডে হচ্ছে না!

পৃষ্ঠাসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

SSL Certificate
কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর