নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 6 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • দীব্বেন্দু দীপ
    • আব্দুর রহিম রানা
    • সাইয়িদ রফিকুল হক
    • নরসুন্দর মানুষ
    • কাঠমোল্লা
    • দ্বিতীয়নাম

    নতুন যাত্রী

    • হুসাইন মাহমুদ
    • অচিন-পাখী
    • শুভ্র আহমেদ বিপ্লব
    • রোহিত
    • আকাশ লীনা
    • আশরাফ হোসেন
    • হিলম্যান
    • সরদার জিয়াউদ্দিন
    • অনুপম অমি
    • নভো নীল

    বাংলাদেশের একটি প্রাইমারি-স্কুল পৃথিবীর সকল মাদ্রাসার চেয়ে উত্তম


    পৃথিবীর কিংবা বাংলাদেশের সমস্ত মাদ্রাসা আমাদের একটি প্রাইমারি-স্কুলের সমতুল্য নয়। কথাটি শুনে অনেকে হয়তো আঁতকে উঠতে পারে। কারণ, এরা ধর্মব্যবসায়ী আর এই ধর্মব্যবসায়ীদেরই দালাল কিংবা তাদের বেতনভুক্ত মুখপাত্র। এখানে, হয়তো মাদ্রাসার পোষ্যকোটার দালাল সলিমুল্লাহ খানরা নাকগলাতে পারে। কিন্তু এই দালালদের এই সত্যটি উপলব্ধি কিংবা হৃদয়ঙ্গম করার মতো যোগ্যতা, মেধা ও সৎসাহস নাই।
    যাক, বলছিলাম—পৃথিবীর কিংবা এই বাংলাদেশেরই সমস্ত মাদ্রাসা বাংলাদেশের সামান্য একটি প্রাইমারি-স্কুলের সঙ্গে মানে, মননে, মেধায়, শিক্ষাদীক্ষায়, চরিত্রে, সততায় আর দেশপ্রেমের ক্ষেত্রে টিকতে পারবে না। এমনকি এর ধারেকাছেও ঘেঁষতে পারবে না। এর কারণগুলো এবার খুব সংক্ষেপে ব্যাখ্যা করছি:

    বিশ্বাসের ভাইরাস- পর্ব এক! ইমাম সাহেবের সাথে ধর্ম নিয়ে তক্কাতক্কি!


    সকালের সূর্য উঠেছে। উঠেছে শামীম! শামীমের ঘরটা ঠিক মসজিদের পাশেই। মানুষ সাধারণত সকালে ঘুম থেকে উঠে সকালের সূর্য উঠার পরে। তবে ইমাম মোয়াজ্জেমরা সূর্য ওঠার আগেই ঘুম থেকে উঠে যায়। ঘুম থেকে উঠে একেকজন একেক কাজ করে। ঠিক তাই মসজিদের ইমাম সাহেবে আর শামীম এর কাজটিও ভিন্ন।

    ছোটগল্প: বেশ্যাবৃত্তি


    স্বামী দুই বছর পর পর দেশে আসে। মাস খানেক থাকে, এই সময়ে তার প্রধান কাজ হচ্ছে স্ত্রীকে গর্ভবতি করে রেখে যাওয়া। এভাবে সে খানিকটা নিশ্চিন্ত থাকতে চেষ্টা করে। ইয়ারুন চায় না, তার টাকায় স্ত্রী দেশে ফূর্তি করে বেড়াক অন্য পুরুষদের সাথে। মধ্যপ্রাচ্যে থাকে সে, বাঙালির আবহমান রক্ষণশীলতার সাথে তার ভাবনায় নতুন যুক্ত হয়েছে নারীর প্রতি মধ্যপ্রাচ্যের দৃষ্টিভঙ্গি।

    বিবেকের প্রশ্ন সচেতন জ্ঞান-বিজ্ঞান ও সুস্থ বিবেক দিয়ে দেওয়া যায়, ধর্মীয় উগ্রতা দিয়ে নয়।


    "মানবতাবাদ" বা হিউমানিজম শব্দটি ল্যাটিন শব্দ মানবতা থেকে আসে। মানবতাবাদ ইউরোপের সমস্ত পশ্চিমা দেশগুলির মধ্যে ১৫ থেকে ১৬ শতকের দিকে ছড়িয়ে পড়ে। প্রাচীনকালের মানবতার ধারণায় পণ্ডিতদের দর্শনের পরিবর্তনন ঘটায়।

    "রেনেসাঁ" শব্দটি ফরাসি থেকে আসে এবং তাকে নবজাগরণ বলা হয়। এটি প্রাচীন সংস্কৃতির নতুন আবিষ্কারের সাথে একটি ইউরোপীয় সংস্কার আন্দোলন ছিল। সংস্কারের ফলে খ্রিস্টীয় ধর্মযাজক মার্টিন লুথার কর্তৃক ক্যাথলিক চার্চের পুনর্নবীকরণের প্রতিনিধিত্ব করে।

    পেপাল বিতর্ক


    পেপাল - নিয়ে তর্ক বিতর্ক পুরাই ফালতু পর্যায়ে চলে গেছে । সরকারের ঘোষনা যেমন স্টান্টবাজি ছিলো, লোকজনের প্রতিক্রিয়াও তেমনই কিছুটা মাত্রারিক্ত হয়ে যাচ্ছে ।
    বর্তমানে তথ্য প্রযুক্তি খাতে পেপালের আসা না আসার চেয়েও শতগুন বড় সমস্যা "মানসম্পন্ন" তথ্য প্রযুক্তিবিদ তৈরি করতে না পারা । বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কম্পিউটার সাইন্স পাশ করা বেশির ভাগ ছেলে মেয়ে (মোট গ্র্যাজুয়েটের ৯০ শতাংশ) তেমন কিছু শিখে বের হচ্ছে না ।

    রোগীর কয়েকটি প্রাইভেট প্রশ্ন (উত্তরসহ)


    কিছুদিন ধরে এক রোগীর লেখা ব্লগে দেখতে পাচ্ছি...রোগীটির নাম "লজিক্যাল বাঙালি" কিছুদিন ধরে তিনি বোয়াল মাছ আর পুঁতি মাছকে একই বলতেছেন! তাই এই লেখাটি অই রুগীর জন্য এবং সে ধরণের সকল রুগীদের জন্য............

    তথাকথিত ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র জার্মানি


    হিপোক্রিসি শুধু বাঙালি জাতিরই একচেটিয়া সম্পত্তি নয়! জার্মানদের মধ্যেও হিপোক্রিসি বিদ্যমান। পার্থক্য হচ্ছে, তথাকথিত সভ্য জাতি হিসেবে পরিচিত জার্মানেরা বা ইউরোপিয়ানেরা এতো নিখুঁত, দক্ষ এবং শান্তশিষ্ট ভাবে হিপোক্রিসি করে থাকে যা চোখে পড়া কঠিন। অন্যদিকে, বাঙালি বা এশিয়ানেরা স্বভাবত খুবই উত্তেজিত ও বাচাল প্রকৃতি হওয়ার কারণে সেগুলো চোখে পড়ে।

    ইসলামী পন্ডিতদের দেখান পথেই মুহাম্মদের চরিত্রকে সবার সামনে তুলে ধরা হয়


    জাকির নায়েক সহ সকল কথিত ইসলামী পন্ডিতরা সর্বদাই অমুসলিমদের কাছে তাদের ধর্ম যেমন খৃষ্টান , হিন্দু , বৌদ্ধ ইত্যাদি নিয়ে এমন সব কথা বলে যে তাতে তাদের মনে তাদের ধর্ম সম্পর্কে সন্দেহ ঢুকে যায়, তারা খুব ভাল করেই জানে যে , অমুসলিমরা তাদের ধর্মের ব্যপারে ভীষণ অজ্ঞ। অত:পর তাদের সামনে ইসলাম যে কত প্রকারে সন্দেহাতীত ধর্ম সেটার বয়ান করে তাদেরকে ইসলাম গ্রহনে উদ্বুদ্ধ করা হয়। ইসলামের সমালোচনাকারীরা ইসলামী পন্ডিতদের এই কৌশলটা রপ্ত করেছে। আর তাই তারা সর্বপ্রথমেই মুহাম্মদের চরিত্র নিয়ে মুসলমানদের মধ্যে সন্দেহ তৈরী ক'রে , তাদেরকে ইসলামের মত একটা অমানবিক অনৈতিক ও বর্বর ধর্ম থেকে দুরে সরিয়ে আনার চেষ্টা করছে

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর