নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

দৃষ্টি আকর্ষণ

  • ট্রেনিংরুম ঘুরে আসুন।
  • ইস্টিশনের এন্ড্রয়েড এ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড করুন
  • পরিষ্কার বাংলা দেখার জন্য এখান থেকে ফন্ট ইন্সটল করে নিন।
  • অনলাইনে লেখা কনভার্ট করুন
  • ইস্টিশনের নতুন ব্যানার দেখতে না পেলে/সমস্যা হলে Ctrl+F5 চাপুন।
  • প্যাসেঞ্জার ট্রেন শিডিউল
  • আপনার ব্রাউজার থেকে ইস্টিশনব্লগের সাথে সবসময় যুক্ত থাকতে নিচের লোগোতে ক্লিক করে টুলবারটি ইন্সটল করুন।
  • ওয়েটিং রুম

    এখন 7 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

    • সুব্রত শুভ
    • রাহাত মুস্তাফিজ
    • জান্নাতুল নাইম শাওন
    • নুর নবী দুলাল
    • মূর্খ চাষা
    • জুলিয়াস সিজার
    • কিন্তু

    নতুন যাত্রী

    • মাসুদ রুমেল
    • জুবায়ের-আল-মাহমুদ
    • আনফরম লরেন্স
    • একটা মানুষ
    • সবুজ শেখ
    • রাজদীপ চক্রবর্তী
    • নাজমুল-শ্রাবণ
    • চিন্ময় ভট্টাচার্য
    • নেইমানুষ
    • পরাজিত শুভ

    স্যাপিয়েন্সঃ মানবজাতির সংক্ষিপ্ত ইতিহাস by Yuval Noah Harari পর্ব ১ঃ বুদ্ধিমত্তার বিপ্লব - তৃতীয় অধ্যায়


    তবে আদিম আরণ্যকদের জীবনে গোত্রের সাথে গোত্রের এই সম্পর্কেটাকে খুব বেশি গুরুত্ব দেওয়া যাবে না। যদিও একই উপজাতির অন্য গোত্রের সাথে মিলে স্যপিয়েন্সরা মাঝে মাঝে শিকার করতো, যুদ্ধ করতো, উৎসব করতো, কিন্তু তাদের বেশিরভাগ সময়ই কাটত নিজেদের গোত্রের ভেতরে। বাণিজ্য সীমাবদ্ধ ছিল সৌখিন জিনিষপত্রের মধ্যে, যেমন শঙ্খ, রঙ, রঙ্গিন পাথর ইত্যাদি। তারা নিজেদের ভেতরে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য বিনিময় করত, অথবা তাদের জীবন আমদানীকৃত পণ্যের ওপর নির্ভর করত, এরকম কোন নজির নেই। রাজনৈতিক সম্পর্ক থাকলেও সেটা খুব একটা শক্ত ছিলনা। মাঝে মাঝে হয়ত যৌথ সভা হতো, তবে কোন স্থায়ী রাজনৈতিক কাঠামো ছিল না। সে সময়কার সাধারণ একজন লোক হয়ত মাসের পর মাস গোত্রের বাইরের কারো সাথে কথাই বলত না। সারা জীবনে সে বড়জোর কয়েকশ’ লোকের দেখা পেতো। সারা বিশ্বে স্যাপিয়েন্স জনসংখ্যার ঘনত্ব ছিল খুবই কম। কৃষি বিপ্লবের আগে সারা পৃথিবীর মোট জনসংখ্যা ছিল কায়রো শহরের বর্তমান জনসংখ্যার চেয়ে কম।

    slide8

    একটি চিঠি এবং চিঠির উত্তর


    সমকামী আর রূপান্তরকামীদের মানবাধিকার যেন লঙ্ঘন না হয়, তা লক্ষ রাখার দায়িত্ব সমকামী আর রূপান্তরকামীদেরই শুধু নয়, সংখ্যাগরিষ্ঠ বিপরীতকামীদেরও। মানবতার জন্য সব মানুষকেই এগিয়ে আসতে হয়। সবাই যদি এগিয়ে নাও আসে, তাহলেও ক্ষতি নেই। লক্ষ লক্ষ লোক দল বেঁধে সমাজ বদলায় না। ইতিহাস বলে,হাতে গোণা

    বিদ্রোহী রণক্লান্তের জন্মদিনে বিনম্র শ্রদ্ধা!


    বিদ্রোহের কবি সাম্যের কবি কাজী নজরুল ইসলাম তুলে ধরেছিলেন শ্রমজীবী মানুষের দুঃখ দূর্দশার কথা তিনি লিখেছিলেন, 'দেখিনু সেদিন রেলে, কুলি ব’লে এক বাবু সা’ব তারে ঠেলে দিলে নীচে ফেলে! / চোখ ফেটে এল জল, এমনি ক’রে কি জগৎ জুড়িয়া মার খাবে দুর্বল?

    ঘুষ দেয়া-নেয়া অপরাধ; রম্য নাটক মঞ্চস্থ হলো নারায়ণগঞ্জে।


    "

    ঘুষ দেয়া ও নেয়া উভয়ই সমান অপরাধ" বিজ্ঞাপনে দেখে থাকি, ঘুষ দিলে ও নিলে পুলিশ উভয়কেই গ্রেফতার করে। কেননা উভয়ই সমান অপরাধে অপরাধী। কিন্তু আমার বিবেচনায় যে ঘুষ দেয় সে সব চেয়ে বড় অপরাধী। কেননা যে ঘুষ দিলো সে যদি ঘুষ না দিয়ে এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করতো তবে ঘুষ যে নিলো সে নেয়ার কোন সুযোগ পেতো না। বরং আপনি প্রতিবাদ না করে ঘুষ দিয়ে তাকে উৎসাহী করলেন। সুতরাং যে ঘুষ নিলো তার থেকে যে ঘুষ দিলো সে বেশি অপরাধী।

    শ্যামলকান্তির বিরুদ্ধে করা ঘুষের মামলা মিথ্যে, বানোয়াট ও ষড়যন্ত্রমূলক



    ঘটনা ও বিশ্লেষণ থেকে স্পষ্ট বুঝা যায় শ্যামলকান্তির বিরুদ্ধে আনীত ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ মিথ্যে, বানোয়াট, হয়রানীমূলক ও ষড়যন্ত্রের অংশ। প্রতিহিংসা চরিতার্থ করার হীন উদ্দেশ্যে তাঁকে মামলায় ফাঁসানো হয়েছে। শ্যামলকান্তির অবিলম্বে জামিন দাবী করছি এবং ঘুষ গ্রহণের মিথ্যে অভিযোগটি ডিসচার্জড করে তাঁকে অভিযোগের দায় থেকে অব্যাহতি দেওয়া হোক। সেই সাথে ঘুষ দিতে চাওয়া ও মিথ্যে মামলা করার জন্য অভিযোগকারীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হোক।

    রমজান - রহমত , গুনাহ্ মাফ ও জাহান্নাম থেকে মুক্তি বনাম অভিশাপ, লা’নত্ ও আল্লাহর গজবের মাস


    রমজান মাস রহমত , গুনাহ্ মাফ্ ও জাহান্নাম হতে মুক্তির মাস ।।

    রমজান মাস রহমতের মাস তাদের জন্য - যারাঃ

    আল্লাহর বাণীতে বিশ্বাস স্থাপন করে যে شَهْرُ رَمَضَانَ الَّذِي أُنزِلَ فِيهِ الْقُرْآنُ هُدًى لِّلنَّاسِ وَبَيِّنَاتٍ مِّنَ الْهُدَىٰ وَالْفُرْقَانِ

    * এই সেই রমজান মাস, যে মাসে ক্বোর'আন অবতীর্ণ হয়েছে মানুষমাত্রের পথ নির্দেশনার জন্য , যাতে সবিস্তার হেদায়াত রয়েছে , যা ন্যায় অন্যায় যাচাইয়ের কষ্টিপাথর।”

    * আল্লাহর নির্দেশ ও রাসূল (সা:) এর আমল অনুযায়ী সিয়াম সাধনা করবে ।

    * ক্বোর'আন শিখবে ও শিখাবে , অর্থ বুঝে আমল করবে ।

    প্রবাসের অখ্যাত গল্প-৮


    সুইডেনের শীতকালটা নিয়ে আমাদের মত প্রবাসীদের মনের মাঝে একটা ভয় ভীতি আর আতঙ্কের ছায়া বিরাজ করে, নিজেদের সঙ্কীর্ণ মানসিকতার কারণেই এখানকার সমাজ, পরিবেশ, প্রকৃতি ও তাদের আচার আচরণের উপর এক ধরনের বিরূপ ধারণা মনের মাঝে স্থায়ী ভাবেই বাসা বাধে |

    প্রসঙ্গ : শ্যামল মাষ্টার এবং অসভ্য মুসলমান ।



    ••••• ড: কামাল হোসেন এ্যটর্নী জেনারেল মাহবুবে আলমকে যে বিলাতি ভাষায় "বাস্টার্ড" গালি দিয়েছেন তাতে আমার মন ভরে নাই । কারন, বেজন্মা মুসলমান বিলাতি ভাষায় গালির জন্য যোগ্য না । এইসব বেজন্মা জঙ্গিদের জন্য খাঁটি বাংলা কিংবা খাঁটি ঢাকাইয়া ভাষার নিম্নমানের রিক্সাওয়ালাদের মুখে মানানসই গালিসমগ্রই যথেষ্ট । তাছাড়া, এইসব বোমাবাজ , চাপাতিবাজ মুসলিমদের অপমান করতে ও শুধু তাদের জন্যই এর চাইতে আরো নিকৃষ্ট কোন অপমানজনক গালি আছে কি না তা খুঁজে বের করা জরুরী ।

    শান্তির ছেলেপুলেরা



    বোমারুর নাম সালমান রমাদান আবেদি| আত্মঘাতী জঙ্গি হানায় বহু নিরীহ মানুষ প্রান দিচ্ছে। নারী শিশুও বাদ নেই। ইসলামিক মৌলবাদের রোষানল থেকে বাদ যাচ্ছে না বিশ্বের কোনও দেশ। ওসামা বিন লাদেনের নির্দেশে যখন ২০০১ সালে আমেরিকার ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারে জোড়া বিমান হানায় কয়েক হাজার নিরপরাধ নাগরিককে হত্যা করা হয়েছিল তখন বিশ্বের পাক্কা মৌলবাদী মুসলিমরা আশাবাদী হয়ে উঠেছিলো এই বুঝি সারা বিশ্বে ইসলাম ধর্ম প্রতিষ্ঠা হয়ে গেল আর কি!!

    পৃষ্ঠাসমূহ

    কু ঝিক ঝিক

    ফেসবুকে ইস্টিশন

    SSL Certificate
    কপিরাইট © ইস্টিশন.কম ® ২০১৬ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর