নীড়পাতা

টিকিট কাউন্টার

ওয়েটিং রুম

এখন 4 জন যাত্রী প্লাটফরমে আছেন

  • শ্মশান বাসী
  • সলিম সাহা
  • মৃত কালপুরুষ
  • মাহের ইসলাম

নতুন যাত্রী

  • নীল মুহাম্মদ জা...
  • ইতাম পরদেশী
  • মুহম্মদ ইকরামুল হক
  • রাজন আলী
  • প্রশান্ত ভৌমিক
  • শঙ্খচূড় ইমাম
  • ডার্ক টু লাইট
  • সৌম্যজিৎ দত্ত
  • হিমু মিয়া
  • এস এম শাওন

আপনি এখানে

পেডোফিলিয়া- ২পর্ব


১)আমার ধারণা, শিশুর যৌন নির্যাতন যারা করে, তাদের মধ্যে অধিকাংশই পেডোফাইল নয়, সেক্সুয়াল ওরিয়েন্টেশন অনুযায়ী। শিশুকে তারা শিকার বানায়, কারণ বানানো সহজ। আসলে তারা কাম চরিতার্থ করার সহজ মাধ্যম খোঁজে।

খোঁজ নিয়ে দেখুন, বিশেষত মেয়েদের, প্রত্যেকের কিন্তু যৌন নির্যাতন শুরু হয়েছে শৈশবে। বাড়িতে বা বাড়ির বাইরে। কিন্তু শৈশবে। কিংবা বড় জোর কৈশোরে। এবার, ভারতীয় পরিসংখ্যান অনুযায়ী,প্রতি দুজনে একজন মেয়ে আর প্রতি তিনজনে একজন ছেলে নিজেকে বাল্য যৌন নির্যাতনের শিকার বলে দাবি করে। গ্লোবাল স্ট্যাটিস্টিকস অনুযায়ী চারজনে একজন মেয়ে, ছজনে একটি ছেলে। আবার ভারতীয় সমাজে, পিঙ্কি ভিরানি বলছেন, এই নির্যাতকদের ৫০% নাকি বাড়ির লোক, আত্মীয় স্বজন। কী মনে হয়? সবাই পেডোফাইল? এক বিশেষ ধরণের যৌনতা যাদের সহজাত?

না, সম্ভবত শিশুরা শিকার, কারণ তারা সহজলভ্য। কারণ চাইল্ড সেক্সুয়াল এবিউজের ধারণা ধোঁয়াটে বাবা মায়ের। আর তাই অপরাধী ভাবে, পার পাওয়া সোজা।

২) কী এল গেল ওই, সংজ্ঞা অনুযায়ী পেডোফাইল নাকি তা নয়, তাতে? কেন এক নম্বর পয়েন্টের আলোচনাটা করলাম?

আসলে অনেককিছু এল গেল। একে এক বিশেষ বিকৃতি বা ওরিয়েন্টেশন বলে চিহ্নিত করলেই মনে হয়, আমাদের বাচ্চারা নিরাপদ হয়ে যাবে নিমেষে। কিন্তু পাথর ছুঁড়ে মারলে বা যৌনাঙ্গ কেটে নিলে এক্ষেত্রেও মূল সমস্যাকে অ্যাড্রেস করা হবে না মনে হচ্ছে। রাগ হয়,সত্যি। কিন্তু দুঃখের বিষয়, অপরাধীকে মেরে ফেললে অপরাধ কমে না......।

৩) এই যে ধর্ষণের থেকে কথা হচ্ছে, এই যে ফিসফাস নয়, গলা উঁচিয়ে কথা হচ্ছে, সবাই প্রকাশ্যে উদ্বিগ্ন- এইটা দরকার। এই আলাপ-আলোচনায় শিশুরও অংশগ্রহণ থাকুক। যদিও পেশিশক্তির সামনে সে অসহায়, কিন্তু যৌন অত্যাচার সম্বন্ধে তাকে যথেষ্ট ওয়াকিবহাল করা হোক। আর নিজেরা সজাগ থাকা হোক। সব স্কুলের সজাগ হওয়া উচিত ছিল অনেক আগে থেকেই । না হলে অভিভাবকরা সজাগ করুন তাদের।
বাকিটা আইন দেখুক..... ।

৪) পুরুষ শিক্ষক কেন থাকবে মেয়েদের স্কুলে...? -এই ধরণের বক্তব্যের সাথে ভারতের সংসদ সদস্য কিরণ খের কয়দিন আগে যে বক্তব্য দিয়েছেন, তার ভিতরে কোনো তফাত নেই। পুরুষ নারী নির্বিশেষে যে কেউ শিশুর যৌন নির্যাতন ঘটাতে পারে, এবং ঘটায়।

৫) প্রতিটি শিশু মূল্যবান। অবৈতনিক স্কুলের শিশুরাও আমাদের দায়িত্ব, সরকারের দায়িত্ব। সাধারণ মানুষ বা মিডিয়া একবার ভাববে না এই বিষয়ে?

Comments

Post new comment

Plain text

  • সকল HTML ট্যাগ নিষিদ্ধ।
  • ওয়েবসাইট-লিংক আর ই-মেইল ঠিকানা স্বয়ংক্রিয়ভাবেই লিংকে রূপান্তরিত হবে।
  • লাইন এবং প্যারা বিরতি স্বয়ংক্রিয়ভাবে দেওয়া হয়।
CAPTCHA
ইস্টিশনের পরিবেশ পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য আপনাকে ক্যাপচা ভেরিফিকেশনের ধাপ পেরিয়ে যেতে হবে।

বোর্ডিং কার্ড

বিকাশ দাস বাপ্পী
বিকাশ দাস বাপ্পী এর ছবি
Offline
Last seen: 1 week 1 দিন ago
Joined: শুক্রবার, মার্চ 17, 2017 - 1:00পূর্বাহ্ন

লেখকের সাম্প্রতিক পোস্টসমূহ

ফেসবুকে ইস্টিশন

কপিরাইট © ইস্টিশন ব্লগ ® ২০১৮ (অনলাইন এক্টিভিস্ট ফোরাম) | ইস্টিশন নির্মাণে:কারিগর